সংবাদ শিরোনাম

বিমানের টিকিটের জন্য জমানো টাকায় তরুণকে ইজিবাইক কিনে দিলেন সুমন | মৌলবাদী গোষ্ঠী ধর্মীয় সংগঠন করে রাজনৈতিক খায়েশ মেটাচ্ছে: শিক্ষা উপমন্ত্রী | ‘আওয়ামী লীগ-বিএনপি লড়াই নাই, দেশের মানুষ ভাই ভাই'- বাবুনগরী | নাগরিকদের বিনামূল্যে করোনা ভ্যাকসিন দেবে মালয়েশিয়া | ছেলের নামে টুর্নামেন্টের আয়োজন করে খেলোয়াড়দের পেটালেন ইউএনও! | ভাস্কর্য আমার বাবার হলেও টেনেহিঁচড়ে ফেলে দেবো: বাবুনগরী | মাহফিলে বক্তব্য না দিয়েই ঢাকায় ফিরে গেলেন মামুনুল হক | ঝিকরগাছায় ধানের বাম্পার ফলন, কৃষকের মুখে খুশির ঝিলিক | অনলাইনে ১৬ লাখ টাকার ফ্যান কিনে পেলেন ঝুট কাপড় ও ইট! | সন্ত্রাসী হামলায় ইরানের জ্যেষ্ঠ পরমাণুবিজ্ঞানী নিহত |

  • আজ ১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

লিবিয়ায় শান্তির সুবাতাস, সংঘাত নিরসনে স্থায়ী যুদ্ধবিরতি চুক্তি সই

৮:৪১ অপরাহ্ন | শুক্রবার, অক্টোবর ২৩, ২০২০ আন্তর্জাতিক
libya

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ লিবিয়ায় যুদ্ধরত দুইপক্ষ দেশটির স্থায়ী যুদ্ধবিরতি দিয়ে শান্তিচুক্তি করতে সম্মত হয়েছে। শুক্রবার যুদ্ধরত প্রধান দুই পক্ষ এ পূর্ণাঙ্গ যুদ্ধবিরতিতে রাজি হয়। জাতিসংঘের লিবিয়া বিষয়ক বিশেষদূত এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

লিবিয়ার জাতিসংঘের সহযোগী মিশনের প্রধান স্টেফানি তুরকোস উইলিয়ামস জানান, লিবিয়ার পক্ষগুলো স্থায়ী যুদ্ধবিরতি চুক্তিতে একমত হয়েছে। সারা দেশে এ চুক্তির শর্তাবলী বাস্তবায়ন করা হবে।

সংবাদ সম্মেলনে উইলিয়ামস বলেন, আজকের দিনটি লিবিয়ার নাগরিকদের জন্য অত্যন্ত আনন্দের। চুক্তি স্বাক্ষরের পর জাতিসংঘের লিবিয়া মিশন এক বিবৃতিতে জানায়, লিবিয়ার নাগরিকদের জন্য সুসংবাদ।

মিশন আরো জানায়, জেনেভায় বিদ্রোহী এবং জাতিসংঘ স্বীকৃত সরকারের প্রতিনিধিদের বৈঠক হয়। বৈঠকে পুরো লিবিয়ায় যুদ্ধবিরতি চুক্তি বাস্তবায়নের ঐতিহাসিক সিদ্ধান্তে পৌঁছায় সংঘাতে লিপ্ত পক্ষগুলো। গুরুত্বপূর্ণ এ চুক্তির মাধ্যমে লিবিয়ায় শান্তি এবং স্থিতিশীলতার প্রতিষ্ঠার প্রক্রিয়া সামনে এগিয়ে যাবে বলেও প্রত্যাশা জাতিসংঘের।

জাতিসংঘ স্বীকৃত গভর্নমেন্ট অব ন্যাশনাল অ্যাকর্ড (জেএনএ) এবং খলিফা হাফতারের নেতৃত্বাধীন পূর্বাঞ্চল ভিত্তিক বিদ্রোহী গোষ্ঠী লিবিয়ান ন্যাশনাল আর্মির প্রতিনিধিদের মধ্যে আগামী মাস থেকে রাজনৈতিকভাবে সংকট সমাধানের বিষয়ে তিউনেশিয়ায় আলোচনা শুরুর কথা রয়েছে।

চুক্তি অনুযায়ী আগামী তিন মাসের মধ্যে বিদেশি সেনা এবাং ভাড়াটেদের লিবিয়া ত্যাগ করতে হবে।

ত্রিপোলি থেকে আল জাজিরার প্রতিনিধি মাহমুদ আবদেলওয়াহেদ জানান, যুদ্ধবিরতির সফলতা নির্ভর করবে অনেক কিছুর উপর। নতুন চুক্তি কতোটা বাস্তবায়ন হয় তা দেখার জন্য অপেক্ষা করতে হবে। কারণ অতীতে চুক্তি হয়েছে। সে চুক্তি লঙ্ঘনও হয়েছে। একে অপরকে দোষারোপ করেছে বিবদমান পক্ষগুলো।

আবদেলওয়াহেদ জানান, বিদেশি সেনা এবং বন্দি ইস্যু সমাধানও চুক্তি বাস্তবায়নের জন্য জরুরি।

চুক্তির অংশ হিসেবে এক বছরের বেশি সময় পর ত্রিপোলি থেকে যাত্রীবাহী বিমান পূর্বাঞ্চলীয় শহর বেনগাজিতে অবতরণ করেছে। চুক্তির পর উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন জাতিসংঘের উইলিয়ামস। বলেন, আজকের এ পর্যায়ে আসতে অনেক সময় লেগেছে। চুক্তির ফলে বাস্তুচ্যুত এবং শরণার্থীরা তাদের বাড়িঘরে ফিরতে পারবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

উল্লেখ্য ২০১১ সালে আরব বসন্তের প্রভাবে বিক্ষোভ ও গৃহযুদ্ধে লিবিয়ার দীর্ঘকালীন শাসক মুয়াম্মার আল-গাদ্দাফির পদচ্যুতি ও নিহত হওয়ার পর দেশটি দু’পক্ষে বিভক্ত হয়ে পড়ে।

জাতিসংঘ স্বীকৃত লিবিয়ার সরকার রাজধানী ত্রিপোলিসহ দেশটির পশ্চিমাঞ্চল নিয়ন্ত্রণ করতে থাকে। অন্যদিকে বেনগাজিকে কেন্দ্র করে মিসর, জর্ডান ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের সমর্থিত বিদ্রোহী জেনারেল খলিফা হাফতারের বাহিনী দেশটির পূর্বাঞ্চলের দখল নেয়।