ফ্রান্সে অস্বাভাবিকভাবে বেড়েছে করোনার সংক্রমণ, দ্বিতীয়বার লকডাউন ঘোষণা

১২:৩০ অপরাহ্ন | বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ২৯, ২০২০ আন্তর্জাতিক
france

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ করোনা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় ফরাসী প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল মাক্রোঁ ফ্রান্সে দ্বিতীয়বারের মত দেশজুড়ে লকডাউনের ঘোষণা দিয়েছেন। এই পর্যায়ের লকডাউন নভেম্বরের শেষ পর্যন্ত চলবে।

বুধবার (২৮ অক্টোবর) রাতে ফরাসী রাষ্ট্রপতি এমানুয়েল মাক্রোঁ এ ঘোষণা দেন। শুক্রবার থেকে শুরু হওয়া লকডাউন সম্পর্কে তিনি বলেছেন, মানুষ এসময়ে কেবল প্রয়োজনীয় কাজ বা চিকিৎসার জন্য বাইরে যেতে পারবে, তাছাড়া নয়।

তিনি জানিয়েছেন, রেস্তোঁরা এবং বারের মতো অপ্রয়োজনীয় সব ধরনের ব্যবসা এই লকডাউন চলাকালীন সময়ে বন্ধ থাকবে। তবে স্কুল এবং কারখানাগুলো উন্মুক্ত থাকবে। এছাড়া মার্চ মাসের প্রাথমিক লকডাউনে যেমন প্রয়োজন ছিল তেমনি লোকদের বাড়ির বাইরে যাওয়ার জন্য একটি ফর্ম পূরণ করে বাইরে যেতে হবে।

এপ্রিলের পর থেকে ফ্রান্সে করোনা ভাইরাসে দৈনিক মৃত্যু সর্বোচ্চ স্তরে রয়েছে। মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) দেশটির ৩৩ হাজার মানুষ নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির স্বাস্থ্য বিভাগ।

এ বিষয়ে প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাক্রোঁ বলেছেন, দেশে করোনার দ্বিতীয় ওয়েভ আসার যে ঝুঁকি রয়েছে, সেটি যে প্রথমবারের তুলনায় অনেক বেশি বিপদজনক বা শক্ত হবে, সে বিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই।

করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় দফা আক্রমণে ফরাসী সরকার বেশ বিস্মিতই হয়েছে। প্রতিদিন আনুমানিক ৫০ হাজার নতুন সংক্রমণের খবর পাওয়া যাচ্ছে। ধারণা করা হচ্ছে যে এই সংখ্যাটি সংক্রমণের আসল সংখ্যার চেয়ে অনেক কম।

প্যারিসে হাসপাতালের জরুরি আসনের ৭০% আসনে বর্তমানে কোভিড রোগীরা রয়েছেন। দ্বিতীয় দফা লকডাউন জারি করায় ফ্রান্সে ব্যবসায়িক কার্যক্রম নিশ্চিতভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে - বিশেষ করে বিনোদন এবং ইভেন্টস সংক্রান্ত ব্যবসার ক্ষেত্রে।

গত কয়েকমাসে ফরাসী অর্থনীতির অবস্থা কিছুটা ভাল হলেও এখন মনে হচ্ছে যে বছরের শেষে নিশ্চিতভাবেই অর্থনীতি আরো খারাপ পরিস্থিতির সম্মুখীন হবে। ফ্রান্সের সরকারের অনুমান, ২০২০ সালে মোট ১০ শতাংশ জিডিপি হ্রাস হবে।