১৫ লাখ টাকা যৌতুক না দেওয়ায় স্ত্রীকে নির্যাতন, থানায় অভিযোগ!

১১:৩৫ অপরাহ্ন | বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ২৯, ২০২০ রাজশাহী
zoutuk

বগুড়া প্রতিনিধিঃ বগুড়ার শেরপুরে বেওরাপাড়া গ্রামে যৌতুকের টাকা না দেওয়ায় গৃহবধু নুরুন নাহারকে বেধড়ক মারপিট করে আহত করার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় নুরুন নাহার বাদী হয়ে স্বামী বাবু মিয়ার (৪২) বিরুদ্ধে শেরপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

জানা যায়, উপজেলার বিশালপুর ইউনিয়নের বেওরাপাড়া গ্রামের নজরুল ইসলামের মেয়ে নুরুন নাহারের সিরাজগঞ্জ জেলার শাহজাদপুর উপজেলার বাঘাবাড়ি গ্রামের খোরশেদ আলীর ছেলে বাবু মিয়ার সাথে কয়েক বছর আগে পারিবারিক ভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের পর তারা শেরপুর পৌর শহরের শান্তিনগর এলাকায় বাসা ভাড়া করে থাকতো।

বিয়ের কিছুদিন পর মেয়ের সুখের জন্য নুরুন নাহারের বাবা বাবু মিয়াকে ৫ লাখ টাকা প্রদান করেন। তার কিছুদিন পরেই নাহার জানতে পারে যে বাবু মিয়া এর আগেও একটা বিয়ে করেছিল। তার পর থেকেই তাদের সংসারে অশান্তি বিরাজ করছিল। কলহের জের ধরে বাবু মিয়া নাহারকে যৌতুকের টাকার জন্য মারধর করতো।

এরই জের ধরে গত ২০ অক্টোবর মঙ্গলবার রাতে বাবু মিয়া তার স্ত্রীর কাছে ১৫ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে। সেই টাকা না দেয়ায় নুরুন নাহার কে এলোপাথাড়ি মারধর করে গুরুতর আহত করা হয়। পরে তাকে উদ্ধার করে শেরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়।

এ ঘটনার প্রতিকার চেয়ে ২৮ অক্টোবর রাতে নুরুন নাহার বাদি হয়ে বাবু মিয়ার বিরুদ্ধে শেরপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত বাবু মিয়া জানান, নুরুন নাহারের সাথে আমার কোন দিনও সংসার হয়নি। সে আমাকে ট্র্যাপ করে বিয়ে করেছিল। আর যৌতুক চাওয়ারতো প্রশ্নই আসেনা।

এ ব্যাপারে শেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শহিদুল ইসলাম শহিদ বলেন, অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।