সংবাদ শিরোনাম

আগামীকাল বঙ্গবন্ধু রেলসেতুর ভিত্তি স্থাপন করবেন প্রধানমন্ত্রী | জিনের আছর ভর করেছিল, ১৭ দিনের শিশু হত্যার দায় স্বীকার করলেন মা | রংপুরে অসামাজিক কার্যকলাপের অভিযোগে পুলিশ সদস্য আটক | বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে অনাহুত বিতর্কের ভিন্ন উদ্দেশ্য থাকতে পারে: কাদের | দেশে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধিতে ভারত সরাসরি জড়িত: ডা. জাফরুল্লাহ | পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেনের দ্রুত আরোগ্য কামনা ভুটানের প্রধানমন্ত্রীর | আ.লীগে যোগ দিলেন বঙ্গবন্ধুর ছবি পোড়ানো মামলার প্রধান আসামি | চাঁদপুরের হাজীগঞ্জের ভূমি অফিস: ঘুষ ছাড়া নড়েনা ফাইল! | পরমাণু বিজ্ঞানী হত্যার কঠিন প্রতিশোধ নেয়ার ঘোষণা ইরানের | মামুনুল হককে ছাড়াই শেষ হলো মাহফিল, ক্ষোভ ঝাড়লেন বাবুনগরী |

  • আজ ১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

নোয়াখালীতে ভাগ্নের ধর্ষণে কন্যা সন্তানের জন্ম দিলেন মামি!

৭:৩০ অপরাহ্ন | মঙ্গলবার, নভেম্বর ৩, ২০২০ চট্টগ্রাম, দেশের খবর
ধর্ষণ

মোঃইমাম উদ্দিন সুমন, নোয়াখালী প্রতিনিধি: নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে ননদের ছেলের ধর্ষণে কন্যা সন্তানের জন্ম দিয়েছেন আপন মামি। এ ঘটনায় মামলা হওয়ায় অভিযুক্ত নাজমুল আলম সোহানকে মঙ্গলবার (৩ নভেম্বর) আটক করে পুলিশ। পরে তাকে ওই মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়।

গ্রেপ্তার নাজমুল আলম সোহান সোনাইমুড়ী উপজেলার কাইয়া গ্রামের প্রবাসী মো. মোরশেদ আলমের ছেলে। সে মায়ের সঙ্গে চৌমুহনী পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের হাজীপুরে বসবাস করতো।

সন্তানের পিতার পরিচয় না পেয়ে আজ মঙ্গলবার সকালে এক মাস বয়সী সন্তানকে কোলে নিয়ে থানায় হাজির হয়েছেন তিনি।

ভুক্তভোগী নারী জানান, ২০১৯ সালের ৪ ডিসেম্বর চৌমুহনী পৌরসভায় ননদের বাসায় বেড়াতে যান। ওইদিন তাকে বাসায় একা পেয়ে ধর্ষণ করে ননদের ছেলে সোহান। এতে তিনি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন। চলতি বছরের অক্টোবরে তার একটি কন্যা সন্তান জন্ম নেয়। এরপর ওই শিশুর পিতৃত্ব দাবি করে তিনি সোহানের বাড়িতে যান। কিন্তু সোহান তার দাবি অস্বীকার করে। মঙ্গলবার সকালে বাধ্য হয়ে শিশু সন্তানকে কোলে নিয়েই থানায় হাজির হন ওই নারী।

বেগমগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রুহুল আমিন জানান, অভিযুক্ত নাজমুল আলম সোহান ওই নারী ননদের ছেলে। মৌখিক অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে মঙ্গলবার দুপুরে তাকে চৌমুহনী পৌরসভার বাড়ি থেকে আটক করা হয়েছে। পরে তার বিরুদ্ধে মামলা করেন ভুক্তভোগী নারী। সেই মামলায় সোহানকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে হাজির করা হলে বিচারক তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।