মহানবী (স)-কে অবমাননা: ফ্রান্সের পক্ষ নিল আরব আমিরাত

১:২২ অপরাহ্ন | বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ৫, ২০২০ আন্তর্জাতিক
amirat

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ মহানবী হযরত মুহাম্মাদ (স)-কে নিয়ে ফরাসি ম্যাগাজিন শার্লি এবেদোয় অবমাননাকর কার্টুন চাপানোর পর সৃষ্ট পরিস্থিতিতে ফ্রন্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাকরন যে ইসলামভীতি ছড়িয়ে বক্তব্য দিয়েছেন তার পক্ষে অবস্থান নিয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাত।

জার্মান দৈনিক ডাই ওয়েল্ট-কে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে আমিরাতের উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রী আনোয়ার গারগাশ ম্যাকরনের পক্ষে সমর্থন দিয়ে বলেন, মুসলমানদের আরো বেশি ‘সংমিশ্রণ’ দরকার।

তিনি বলেন, “প্রেসিডেন্ট ম্যাকরন কী বলছেন তা মুসলমানদের তা খেয়াল করে শোনা উচিত। পাশ্চাত্যে তিনি মুসলমানদের একঘরে করতে চান নি বরং তিনি যা বলেছেন তা সম্পূর্ণ সঠিক।” গারগাশ বলেন, পশ্চিমা সমাজে মুসলমানদেরকে আরো ভালোভবে মিশতে হবে।

ফ্রান্সে মুসলমানদের বসবাসকে ফরাসি প্রেসিডেন্ট খুব একটা ভালো চোখে দেখছেন না- এমন ধারণা আনোয়ার গারগাশ নাকচ করে দেন।

উল্লেখ্য গত মাসে ফ্রান্সের ম্যাগাজিন শার্লি হেব্দোতে সম্প্রতি মহানবী মুহাম্মদকে (স.) অসম্মান করে কার্টুন ছাপা হয়। সেই কার্টুন শ্রেণিকক্ষে শিক্ষার্থীদের মতপ্রকাশের স্বাধীনতা শেখাতে প্রদর্শন করেন দেশটির এক শিক্ষক। পরে তিনি হত্যাকাণ্ডের শিকার হন। পরে ফ্রান্সের রাষ্ট্রীয় ভবনে সরকারি পৃষ্ঠপোষকতায় সেই কার্টুন প্রদর্শন করা হয়।

ফরাসি প্রেসিডেন্ট জানান, তিনি এ প্রদর্শনী বন্ধ করবেন না। কার্টুন প্রকাশ ও প্রদর্শনী বন্ধকে স্বাধীন মত প্রকাশের উপর আঘাত বলে আখ্যা দেন তিনি। একইসঙ্গে মুসলিম বিচ্ছিন্নতাবাদ মোকাবিলায় কঠোর আইন প্রণয়নের প্রতিশ্রুতি দেন তিনি।

এরপরই ক্ষোভের আগুন ছড়িয়ে পড়ে গোটা মুসলিম বিশ্বে। প্রিয়নবীকে অপমানের জবাবে শুরু হয় তুমুল বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ। দেশে দেশ ছড়িয়ে পড়ে ফ্রান্স বয়কটের ডাক।