ধর্ম অবমাননার গুজব ছড়ানোর প্রতিবাদে গাজীপুরে গণ অবস্থান ও বিক্ষোভ সমাবেশ

৭:৩৪ অপরাহ্ন | শনিবার, নভেম্বর ৭, ২০২০ ঢাকা
Gazipur

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, সময়ের কণ্ঠস্বর: ”সাম্প্রদায়িকতা রুখো, বীর বাঙালী জাগো” এ স্লোগানকে সামনে রেখে গাজীপুর মহানগর হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের ব্যানারে গণ অবস্থান ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে জেলার সংখ্যালুঘু সম্প্রদায়।

শনিবার ( ৭অক্টোবর) সকাল ১১টায় জেলার জয়দেবপুর বাজারস্থ কেন্দ্রীয়  মন্দিরের সামনে তারা এ বিক্ষোভ সমাবেশে অংশগ্রহন করেন।

গাজীপুর মহানগর হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি জীবন কুমার মল্লিকের সভাপতিত্বে এবং বাবু সঞ্জিত কুমার মল্লিকের সঞ্চালনায় বিক্ষোভ সমাবেশে জেলার সংখ্যালুঘু সম্প্রদায়ের সকল নেতাকর্মীরা অংশ গ্রহন করেন। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সভাপতি মন্ডলীর অন্যতম সদস্য ফেডরিক মুকুল কুমার বিশ্বাস, রতন চন্দ্র দাস, কেন্দ্রীয় মন্দির কমিটির সভাপতি নিখিল চন্দ্র দাস, গাজীপুর চৌদ্দ দলের সমন্বয়ক মনোজ কুমার গোস্বামী,  গাজীপুর মহানগর হিন্দু মহাজোটের প্রধান সমন্বয়কারী তপন কুমার রায়, মহানগর হিন্দু মহাজোটের সাধারণ সম্পাদক স্বপন চন্দ্র মল্লিক, দীপক কর, ‍সুদেব দাস, রনজিৎ সিদ্ধা, মানিক মিত্র, খোকন মালাকার, চরণ দাস, অমল চন্দ্র ঘোষ,  উত্তম ঘোষ প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা  ফেসবুক  আইডি হ্যাক করে গুজব ছড়িয়ে সংখ্যালুঘুদের বাড়ি ঘরে হামলা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে ছাত্রদের ফেসবুকে উস্কানীমুলক কথা বলার অভিযোগ এনে বহিস্কারের তীব্র নিন্দা জানান। বক্তারা বলেন স্বাধীনতা যুদ্ধে সকল ধর্মর অংশ গ্রহনে এ দেশ স্বাধীন হয়েছে। সেখানে স্বাধীনতা বিরোধী একটি কুচক্রি মহল শুরু থেকে আজ পর্যন্ত এ দেশের সংখ্যালুঘু সম্প্রদায়কে বিভিন্ন সময় এ দেশে থেকে বিতারিত করার পায়তারা করছে। তারই ধারাবাহিকতায় বর্তমান সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে কাজে লাগিয়ে গুজব ছড়িয়ে অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশকে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লাগানোর চেষ্টা করছে। তাদের এ চক্রান্তকে শক্তহাতে দমন করার জন্যে দেশের প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ জানান তারা।

বক্তারা সম্প্রতি মুরাদ নগরে সংখ্যালুঘু পরিবারের উপর হামলার প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, প্রতিটি ঘটনার সঠিক তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহন করতে হবে। এবং যারা ফেসবুক হ্যাক করে গুজব ছড়ায় তাদের দ্রুত আইনের আওতায় আনতে হবে। সেই সাথে সংখ্যালুঘুদের জন্যে আলাদা ভাবে সংখ্যালুঘু মন্ত্রনালয় গঠনেরও জোড় দাবি জানান তারা।