পঞ্চগড়ে পেটে লাঠির আঘাতে গর্ভপাতের অভিযোগ

১২:৪০ পূর্বাহ্ন | সোমবার, নভেম্বর ৯, ২০২০ রংপুর
Panchagar

নাজমুস সাকিব মুন, পঞ্চগড় প্রতিনিধিঃ পঞ্চগড় সদর উপজেলায় পূর্ব শত্রুতার জেরে প্রতিবেশীর স্ত্রীর পেটে লাঠির আঘাতে গর্ভপাতের ঘটনা ঘটেছে। ঘটনাটি সদর উপজেলার ১নং অমর খানা ইউনিয়নের ঠুটাপাখুরী এলাকায় ঘটে। ঘটনার সময় আয়শা (১৪) নামের এক স্কুল ছাত্রী মুঠোফোনে মারধরের ছবি ধারণ করে।

ঘটনার পর শুক্রবার (৬ নভেম্বর) নাজমা বেগমের (২৬)স্বামী আমিনার রহমান বাদী হয়ে সদর থানায় সয়বুর রহমান (৫৫) সহ ৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন। যাহার নং-৫।

মামলার নথি ও সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, জমি নিয়ে সয়বুর ও আমিনারের পরিবারে মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। তারই প্রেক্ষিতে শুক্রবার (৬ নভেম্বর) দুপুরে নাজমা বেগম বাড়ীর পাশে ড্রেন পরিস্কার করতে গেলে, সয়বুরসহ তার পরিবারের লোকজন দলবদ্ধভাবে আসেন। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে নাজমা বেগমের পেটে সয়বুর লাঠি দিয়ে আঘাত করেন। পরে ওই মহিলার তলপেটে বার বার লাথি মারলে মহিলা অচেতন হয়ে রক্তপাত শুরু হয়।

নাজমা বেগমের পরিবারের সদস্যরা উদ্ধার করে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে নেওয়ার পথেই গর্ভপাত ঘটে। পরে হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা শেষে রোববার (৮ নভেম্বর) ছাড়পত্র নিয়ে বাড়ি ফিরেন।

পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের আবাসিক ডা.সিরাজউদ্দৌলা পলিন নাজমা বেগম পেটে আঘাত পাওয়ায় গর্ভপাতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

পঞ্চগড় সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক ( তদন্ত) মো. জামাল হোসেন জানান , লাথি মেরে গর্ভপাতের ঘটনায় মামলা হয়েছে। আমরা আসামীদের আটকের জন্য অভিযান চালিয়ে যাচ্ছি।