সন্ত্রাসের দায়ে ভারতকে বিচারের মুখোমুখি হতে হবে: ইমরান খান

১১:২৮ পূর্বাহ্ন | সোমবার, নভেম্বর ১৬, ২০২০ আন্তর্জাতিক
ইমরান খান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, পাকিস্তানে সন্ত্রাসী হামলা চালানো ও হাজার হাজার নিরীহ-নিরপরাধ পাকিস্তানিকে হত্যার দায়ে ভারতকে অবশ্যই বিচারের মুখোমুখি হতে হবে। পাশাপাশি রাষ্ট্রীয় মদদে পরিচালিত ভারতের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চিরতরে বন্ধ করতে বিশ্বকে কাজ করতে।

এর আগে পাকিস্তানের রাজধানী ইসলামাবাদে সংবাদ সম্মেলন করেন দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কোরেশি ও পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর মুখপাত্র মেজর জেনারেল বাবর ইফতেখার। সেখানে তারা সন্ত্রাসে নয়াদিল্লির জড়িত থাকার ও পৃষ্ঠপোষকতার অকাট্য প্রমাণস্বরূপ বিভিন্ন দলিল উপস্থাপন করেন। এরপরই শনিবার পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান সন্ত্রাসবাদে জড়িত থাকার দায়ে ভারতকে বিচারের মুখোমুখি হতে হবে বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে দেয়া এক বার্তায় প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেন, ‘রাষ্ট্রীয় মদদ ও পৃষ্ঠপোষকতায় পাকিস্তানের অভ্যন্তরে সন্ত্রাসবাদে ভারতের জড়িত থাকার অকাট্য তথ্যপ্রমাণ আমরা উপস্থাপন করেছি। পাকিস্তানের ভিতরে রাষ্ট্রীয়ভাবে ভারতের সরাসরি জড়িত থাকার বিষয়ে এসব তথ্যপ্রমাণ বিশ্বের সব দেশের কাছে পৌঁছে দেয়া হয়েছে। এসব প্রমাণ পাওয়ার পরও ভারতের এই রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসবাদের বিষয়ে বাকি বিশ্ব উদাসীন বা চুপ করে বসে থাকতে পারে না।’

তিনি বলেন, ভারতীয় এই সন্ত্রাসবাদ বন্ধ করতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে নয়াদিল্লিকে বাধ্য করতে হবে। পাশাপাশি হাজার হাজার নিরীহ-নিরপরাধ পাকিস্তানি জনসাধারণকে হত্যার জন্য ভারতকে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড় করাতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে ভূমিকা রাখতে হবে।

শনিবার ইসলামাবাদে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কোরেশি এবং দেশটির সেনাবাহিনীর মুখপাত্র মেজর জেনারেল বাবর ইফতিখার বলেন, পাকিস্তানের পরিস্থিতি অস্থিতিশীল করতে অভ্যন্তরীণ সন্ত্রাসের পৃষ্ঠপোষকতা এবং চীন-সংশ্লিষ্ট অর্থনৈতিক কার্যক্রমকে লক্ষ্যবস্তু বানিয়েছে ভারত। আর এ মিশন সফল করতে নয়াদিল্লি প্রতিবেশী দেশগুলো থেকে হামলার পরিকল্পনা করছে।

তারা আরো বলেন, ভারতীয় এজেন্টরা আফগানিস্তান থেকে পাকিস্তান সীমান্তে হামলার কার্যক্রম পরিচালনা করছে। কোরেশি বলেন, ভারত তাদের ভূমি পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসের জন্য ব্যবহারের অনুমতি দিচ্ছে।

নয়াদিল্লি প্রতিবেশী দেশগুলো থেকে তাদের ওপর হামলার পরিকল্পনা করছে বলেও দাবি করেন পাকিস্তানি পররাষ্ট্রমন্ত্রী।