সাকিব কালীপূজায় যাওয়ায় ক্ষুব্দ হন তার ‘অন্ধভক্ত’ মহসিন

৬:১৭ অপরাহ্ন | মঙ্গলবার, নভেম্বর ১৭, ২০২০ আলোচিত বাংলাদেশ
র‍্যাব

আবুল হোসেন, সিলেট- ফেসবুক লাইভে এসে ক্রিকেটার সাকিব আল হাসানকে হত্যার হুমকি প্রদানকারী মহসিন তালকুদারকে (২৫) গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-৯। মঙ্গলবার সকালে তাকে গ্রেপ্তারের পর বিকেলে এ বিষয়ে র‌্যাব-৯ কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করা হয়।

এতে র‌্যাব কর্মকর্তারা জানান, সাকিবের একজন অন্ধভক্ত মহসিন তালুকদার। সোশ্যাল মিডিয়ায় সাকিবের পূজা উদ্বোধনে যাওয়ার খবরে ক্ষুব্দ হয়ে তিনি এমন আচরণ করেন।

সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব-৯ এর অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল আবু মুসা মো. শরীফুল ইসলাম বলেন, আমাদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মহসিন তালুকদার বলেছে সে ক্রিকেটার সাকিব আল হাসানের অন্ধভক্ত। সম্প্রতি সাকিবের ভারতের কালীপূজায় উপস্থিত হওয়ার খবর মিডিয়ায় ভাইরাল হলে মহসিন বিষয়টি মেনে নিতে পারেনি। এতে ক্ষুব্দ হয়ে ফেসবুক লাইভে এসে ধারালো অস্ত্র দেখিয়ে সাকিবকে হত্যার হুমকিসহ নানা মন্তব্য করে।

বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হাতে এরকম ঘটনা ভবিষ্যতে না ঘটানো এবং দেশবাসীর কাছে সাকিবকে ক্ষমা চাওয়ানোর জন্য মহসিন এই কাজ করেন বলে সংবাদ সম্মেলনে জানান এই র‌্যাব কর্মকর্তা।

লেঃ কর্ণেল আবু মুসা মো. শরীফুল ইসলাম জানান, কারো প্ররোচনায় নয়; নিজের ক্ষোভ থেকেই এমন কান্ড ঘটিয়েছে সে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে- এ ঘটনার পেছনে, কারো ইন্ধন পায়নি র‍্যাব।

এরআগে মঙ্গলবার সকালে সুনামগঞ্জের দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার পূর্ব পাগলা ইউনিয়নের রণশি গ্রাম থেকে মহসিনকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। সেখানে স্ত্রীর বড়বোনোর বাড়িতে মহসিন আত্মগোপন করেছিলেন বলে জানায় র‍্যাব।

সোমবার রাতে সাকিব আল হাসানকে হত্যার হুমকিদাতা মহসিন তালুদারের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটি মামলা হয়। জালালাবাদ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মাহবুব মোর্শেদ বাদী হয়ে এ মামলা করেন।

এদিকে হুমকির ভিডিওটি ফেসবুকসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার পর থেকে গা ঢাকা দিয়েছিলেন মহসিন। তাকে গ্রেপ্তারে সোমবার দুপুর থেকে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। কলকতায় কালীপূজায় যাওয়ায় রোববার রাতে ফেসবুক লাইভে এসে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানকে হত্যার হুমকি দেন এক যুবক।

রোববার দিবাগত রাত ১২টা ৭ মিনিটে নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে এই লাইভ ভিডিওটি প্রচার করেন। সম্প্রতি কালীপূজা এক অনুষ্ঠানের নিমন্ত্রণ গ্রহণ করে সাকিবের কলকাতায় যাওয়ায় বিক্ষুব্ধ হয়ে তাকে কুপিয়ে-টুকরো করে হত্যার কথা বলেন এই যুবক। এসময় অকথ্য ভাষায় সাকিবকে গালাগাল করতে থাকেন তিনি।

যদিও সোমবার সন্ধ্যায় নিজের ইউটিউব চ্যানেলে এক ভিডিও বার্তায় সাকিব আল হাসান জানিয়েছেন, তিনি কালীপূজর উদ্বোধন করতে ভারতে যাননি। পূজার পাশে একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গিয়েছিলেন। মহসিন তার লাইভে নিজের পরিচয় প্রকাশ করে বলেন, সাকিবকে হত্যা করতে প্রয়োজনে তিনি হেঁটেই ঢাকা যাবেন।

এরপর সোমবার ভোর ৬টা ৪ মিনিটে আবারো একটি লাইভ ভিডিওতে হাজির হন তিনি। এতে রাতের উত্তেজিত ভিডিওর জন্য দুঃখ প্রকাশ করে সাকিব আল হাসানকে জাতির উদ্দেশ্যে ক্ষমা চাওয়ার আহবান জানান।

এ সময় তিনি বলেন, কারো চাপে এখন এ ভিডিওটি নির্মাণ করছেন না বরং সাকিবকে একটা সুযোগ দেয়ার জন্য এবং সাকিবের মতো বাকি সকল সেলিব্রেটিদের সঠিক পথে চলার বার্তা দিতে আবার লাইভ করছেন তিনি।

ভিডিওত ওই যুবককে বলতে দেখা যায়, ‘সাকিব আল হাসান কয়দিন আগে দেশে আইছইন। কিছুদিন আগে তাইন হজে গেছিলা, তখন খুশি হইছিলাম। কিন্তু তাইন ইবার দেশে আইয়া আবার গেলাগি ইন্ডিয়াত পূজা উদ্বোধন করাত। ইটায় মুসলমানের কলিজায় আঘাত করছে। আমি ফাইলে তারে (একটি চাপাতি প্রদর্শন করে) তারে কোপাইয়া কোপাইয়া কাটিমু।’

এ সময় সাকিব আল হাসানকে গালিগালাজ করে পাকিস্তানের ক্রিকেটারদের অনুসরণ করার কথা পরামর্শ দিয়ে ওই যুবক বলেন, ‘তুই কিতা পাকিস্তানের ক্রিকেটাররারে দেখছস না? তোর তো তারারে দেখা উচিৎ। তুই মুসলমানের বাচ্চা হইয়া গেছোস পূজা উদ্বোধন করাত। কলিজাত তুই অলা আঘাত দিছস। তোরে ফাইলে আমি কোপাইয়া কাটিমু। সবাই হুনিয়া রাখইন আমি মহসিন তালুকদার কইরাম। সাকিবরে ফাইলে আমি কোপাইয়া কাটিমু।’

সাকিবকে হুমকি দেওয়া মহসিনের প্রথম ভিডিওটি সোমবার বিকেলে ফেসবুক থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

গত ২৯ অক্টোবর এক বছরের নিষেধাজ্ঞা থেকে মুক্ত হন সাকিব। ৬ নভেম্বর যুক্তরাষ্ট্র থেকে দেশে ফেরেন বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসের সফলতম তারকা।

গত বৃহস্পতিবার ভারতের কলকাতার কাঁকুড়গাছি সম্মিলিত সর্বজনীন শ্যামাপুজোর এক অনুষ্ঠানের নিমন্ত্রণ পেয়ে ভারতে যান এই তারকা। পরদিন শুক্রবার দেশে ফিরে আসেন তিনি।