• আজ ৫ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ভারত, পাকিস্তান এবং বাংলাদেশকে একীভূত করা উচিত: ভারতীয় মন্ত্রী

◷ ৯:১৩ অপরাহ্ন ৷ সোমবার, নভেম্বর ২৩, ২০২০ আন্তর্জাতিক
nawab-malik

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ ভারতের মহারাষ্ট্রের মন্ত্রী ও এনসিপি নেতা নবাব মালিক বলেছেন, জাতীয়তাবাদী কংগ্রেস পার্টি (এনসিপি) বিজেপির ওই পদক্ষেপকে স্বাগত জানাবে যদি ভারত, পাকিস্তান ও বাংলাদেশ সমন্বিত একটি দেশ গঠন করে।

মহারাষ্ট্রের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ও বিজেপি নেতা দেবেন্দ্র ফড়নবিসের সাম্প্রতিক এক মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে নবাব মালিক ওই মন্তব্য করেছেন। সোমবার তার ওই প্রতিক্রিয়া গণমাধ্যমে প্রকাশ্যে এসেছে। রাজ্যটিতে শিবসেনা-এনসিপি-কংগ্রেস জোট সরকার ক্ষমতায় রয়েছে।

এনসিপি নেতা ও রাজ্যের মন্ত্রী নবাব মালিক বিজেপি নেতা দেবেন্দ্র ফড়নবিসের মন্তব্য প্রসঙ্গে বলেন, ‘দেবেন্দ্র ফাড়নবিস যেভাবে বলেছেন যে এমন সময়ও আসবে যখন ‘করাচি’ ভারতের অংশ হয়ে যাবে, তখন আমরা আরও বলছি যে ভারত, পাকিস্তান এবং বাংলাদেশকে একীভূত করা উচিত। বার্লিনের প্রাচীর যদি ভেঙে ফেলা যায় তবে ভারত, পাকিস্তান ও বাংলাদেশ একসাথে আসতে পারে না কেন?’

নবাব মালিক আরও বলেন, ‘বিজেপি যদি এই তিনটি দেশকে সংযুক্ত করে একটি দেশ করতে চায়, তবে আমরা অবশ্যই তাকে স্বাগত জানাব।’

‘করাচি’ নিয়ে মহারাষ্ট্রের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী এবং বিজেপি নেতা দেবেন্দ্র ফড়নবিসের সাম্প্রতিক মন্তব্য সম্পর্কে মালিক এ ধরণের প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন।

মহারাষ্ট্রের মুম্বাইয়ের বান্দ্রায় অবস্থিত একটি মিষ্টির দোকানের নাম ‘করাচি সুইটস’, যার মালিককে সম্প্রতি স্থানীয় এক ‘শিবসেনা’ নেতা নীতিন নন্দগাওকার তার দোকানের নাম পরিবর্তন করতে বলেছিলেন, কারণ করাচি পাকিস্তানে অবস্থিত। যদিও শিবসেনার নেতা সঞ্জয় রাউত এমপি নাম পরিবর্তনের দাবিতে সায় দেননি, বরং বিরোধিতা করেছেন।

ওই ঘটনায় রাজ্যের সবেক মুখ্যমন্ত্রী ও বিজেপি নেতা দেবন্দ্র ফড়নবিস বলেছেন, ‘আমরা সম্পূর্ণভাবে ‘অখণ্ড ভারত’-এ বিশ্বাস করি। আমরা মনে করি যে ‘করাচি’ও একদিন ভারতের অংশ হয়ে উঠবে।’

পাল্টা জবাবে ‘শিবসেনা’ নেতা সঞ্জয় রাউত ‘বিজেপি’ নেতা দেবেন্দ্র ফড়নবিসের উদ্দেশ্যে কার্যত কটাক্ষ করে বলেছেন, সবার আগে পাকিস্তানের দখল করে রাখা কাশ্মীরের অংশ ফেরান, পরে আমরা করাচি যাব!

করাচি দখলের আগে তাকে পাক অধিকৃত কাশ্মীর ছিনিয়ে আনার পরামর্শ দিয়েছেন রাউত। এরপরেই এবার মহারাষ্ট্র সরকারের মন্ত্রী ও এনসিপি নেতা নবাব মালিকের মন্তব্য প্রকাশ্যে এলো।