সংবাদ শিরোনাম

মাদারীপু‌রে শাহেদ বেগ হত্যা মামলায় দুইজ‌নের মৃত্যুদণ্ডচট্টগ্রাম সিটি নির্বাচন: ভোটকেন্দ্রে হামলা, ইভিএম ভাঙচুরইউপি সদস্যের নামে কুরিয়ারে ‘চাইনিজ কুড়াল’ পাঠাল কে?বিএনপি নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার চেষ্টা করছে, অভিযোগ আওয়ামী লীগেরচট্রগ্রামে সংঘর্ষে ছেলের নিহতের খবর শুনে মারা গেলেন মাচট্টগ্রামে বিএনপির কাউন্সিলর প্রার্থী ইসমাইল আটকনিজের ভোট দিতে পারেননি কাউন্সিলর প্রার্থী মনোয়ারা, নির্বাচন বর্জনজামালপুরে দুই মাসে মধ্যে সর্বোচ্চ করোনা রোগী শনাক্তটিকায় অগ্রাধিকার কাদের, সংসদে তালিকা প্রকাশ করলেন প্রধানমন্ত্রীআ.লীগকে জেতাতে উঠেপড়ে লেগেছে প্রশাসন: ডা. শাহাদাত

  • আজ ১৩ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ছেলের নামে টুর্নামেন্টের আয়োজন করে খেলোয়াড়দের পেটালেন ইউএনও!

◷ ১০:৫৬ অপরাহ্ন ৷ শুক্রবার, নভেম্বর ২৭, ২০২০ স্পট লাইট
erw4

সময়ের কন্ঠস্বর ডেস্ক: ছেলের নামে ফুটবল টুর্নামেন্টের আয়োজন করে ফুটবল খেলার মাঠে প্রতিপক্ষ দলের খেলোয়াড়দের বেধড়ক পেটালেন সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সফি উল্লাহ।

শুক্রবার বিকালে দিরাই সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয় মাঠে এ ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, নিজের শিশু ছেলের নামে ‘রাফসান একাডেমি’ করে ফুটবল টুর্নামেন্ট আয়োজন করেন ইউএনও। ওই টুর্নামেন্টের প্রথম রাউন্ডের খেলা শুক্রবার বিকালে দিরাই সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা প্রশাসন দলের প্রতিপক্ষ ছিল উপজেলা বিদ্যুৎ প্রকৌশলী দল।

একাধিক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, খেলা আরম্ভ হওয়ার আগেই উপজেলা প্রশাসন দলে বহিরাগত খেলোয়াড় নিয়ে খেলতে চাইলে প্রতিপক্ষ দলের খেলোয়াড়দের আপত্তি উঠে। এ নিয়ে দুই দলের আপত্তি-অনাপত্তির মাঝেই খেলা শুরু করেন রেফারি। খেলার দ্বিতীয়ার্ধে একটি ফাউল নিয়ে উত্তেজিত হয়ে উঠেন ইউএনও।

একপর্যায়ে প্রতিপক্ষ দলের খেলোয়াড় আবাসিক বিদ্যুৎ অফিসের লাইনম্যান কমলেশ দাসের দিকে তেড়ে যান তিনি। প্রতিপক্ষ খেলোয়াড় কমলেশ দাসকে ধাক্কা দিয়ে মাঠে ফেলে দেন। এ সময় দুই দলের খেলা ফেসবুক লাইভে প্রচার করছিলেন বিদ্যুৎ অফিসের কর্মচারী নুরুজ্জামান মুকুল।

বিষয়টি ইউএনও দেখে দৌড়ে গিয়ে নুরুজ্জামানকে কলার ধরে মারতে মারতে তার মোবাইলটি কেড়ে নিতে চেষ্টা করেন। তবে মোবাইলটি কেড়ে নিতে না পারায় পুরো ঘটনাটি ফেসবুকের লাইভে চলে যায়। এ ঘটনার পর খেলা বন্ধ হয়ে যায়।

ইউএনওর এমন ব্যবহারে উপস্থিত দর্শকরা উত্তেজিত হয়ে উঠলে অধীনস্থ কর্মচারীদের নিরাপত্তা বেষ্টনীতে সরকারি গাড়িতে ওঠে মাঠ ত্যাগ করেন সফি উল্লাহ।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে, আবাসিক বিদ্যুৎ প্রকৌশলী হায়দার আলী বলেন, একজন বিচারক যখন অন্যায়ভাবে কারও গায়ে হাত তুলেন, তখন আর কিছুই বলার থাকে না।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে, দিরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সফি উল্লাহ বলেন, খেলায় সামান্য ভুল বোঝাবুঝি হয়েছিল, বিষয়টি মিটে গেছে।