সংবাদ শিরোনাম

জমি সংক্রান্ত বিরোধে ভাইয়ের হাতে বোন খুন!টাঙ্গাইলে রাতের অন্ধকারে অতর্কিত হামলায় কলেজ ছাত্র নিহতফেনীর সোনাগাজী পৌর মেয়রের জমির শ্রেনী পরিবর্তন করে রাজস্ব ফাঁকি‘ভারতে যারাই ক্ষমতায় এসেছে, তারাই মুসলমানদেরকে শিক্ষা থেকে দূরে রেখেছে’দাপুটে জয়ে সিরিজ শুরু বাংলাদেশেরসাজার বদলে আদালত থেকে দেয়া হলো বই, ১০ শর্তে মুক্তি পেলো ৪৯ শিশুকুয়াকাটায় সৈকতে ডিগবাজি দিতে গিয়ে পর্যটকের মৃত্যুঠাকুরগাঁওয়ে স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদণ্ডশাহজাদপুরে বসতবাড়িতে চোরাই তেলের অবৈধ গোডাউনে ভয়াবহ আগুন, ৩ জন দগ্ধটাঙ্গাইলে ৫ম শ্রেণির ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগে যুবক গ্রেফতার

  • আজ ৭ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শেরপুরে ইটভাটার পাহারাদার হত্যা: মালিকের ২ ছেলেসহ গ্রেফতার ৩

◷ ৪:০২ অপরাহ্ন ৷ রবিবার, নভেম্বর ২৯, ২০২০ ময়মনসিংহ
শেরপুর ম্যাপ

মইনুল হোসেন প্লাবন, শেরপুর- শেরপুরের শ্রীবরদীতে জে.ইউ.বি ইটভাটার শ্রমিক সেলিম মিয়া ওরফে বাবু (৩০) হত্যার অভিযোগে ইটভাটার মালিক জালাল উদ্দিনের ২ ছেলেসহ ৩ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শনিবার নিহত বাবুর পিতা গোলাপ হোসেন বাদী হয়ে ১০ জনকে আসামী করে থানায় মামলা দায়ের করলে পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেফতার করে।

জানা যায়, উপজেলার শ্রীবরদী সদর ইউনিয়নের নয়ানী শ্রীবরদী গ্রামের গোলাপ হোসেনের ছেলে সেলিম মিয়া ওরফে বাবু স্থানীয় জে.ইউ.বি ইটভাটায় পাহাদারের কাজ করতো। গত ২৪ নভেম্বর কাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হয় বাবু।

পরে পরিবারের লোকজন তাকে খুঁজে না পেয়ে গত ২৭ নভেম্বর থানায় সাধারণ ডায়েরি করে। ২৮ নভেম্বর শনিবার ভোরে ইটভাটার কাছাকাছি শ্রীবরদী- নিলক্ষিয়া সড়কের পাশে পানির ডুবায় তার মরদেহ ভাসতে দেখে স্থানীয়রা। পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্যে জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে।

পরে এ ঘটনায় নিহত বাবুর পিতা গোলাপ হোস্নে বাদী হয়ে ওই ইটভাটার মালিক জালাল উদ্দিনের ২ ছেলেসহ ১০ জনের নামে হত্যা মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় পুলিশ অভিযান চালিয়ে পৌর শহরের সাতানী শ্রীবরদী এলাকার জালাল উদ্দিনের ছেলে হাফিজুর রহমান (৪০), হারুনুর রশিদ সদা (৩৭), ইটভাটার ম্যানেজার ও দক্ষিণ পোড়াগড় গ্রামের সিদ্দিক মিয়ার ছেলে ইস্রাফিল মিয়া (৩৫) কে গ্রেফতার করে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন যাবত ইটভাটার মালিক জালাল উদ্দিনের সাথে তার ছেলে হাফিজুর রহমান ও হারুনুর রশিদ সদার বিরোধ চলছিল। ওই কারণে তার ২ ছেলেসহ ইটভাটার কর্মরত কয়েকজন শ্রমিকের যোগসাজসে তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।

এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ রুহুল আমিন তালুকদার বলেন, নিহতের পরিবারের অভিযোগের প্রেক্ষিতে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অপর আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে। দ্রুতই ঘটনার রহস্য উদঘাটন হবে।