• আজ রবিবার, ১৭ শ্রাবণ, ১৪২৮ ৷ ১ আগস্ট, ২০২১ ৷

শেরপুরে মানুষ ও হাতির “দ্বন্দ্ব” নিরসনে কর্মশালা অনুষ্ঠিত

Sherpur-Jhenatigati pic
❏ সোমবার, নভেম্বর ৩০, ২০২০ ময়মনসিংহ

মিজানুর রহমান, নালিতাবাড়ী(শেরপুর)প্রতিনিধিঃ শেরপুর জেলার ঝিনাইগাতী উপজেলার রাংটিয়া ফরেষ্ট রেঞ্জের আয়োজনে মানুষ ও হাতির দ্বন্দ্ব নিরসনে সচেতনতামূলক এক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

২৮ নভেম্বর শনিবার দুপুরে ‘হাতি একটি নিরিহ প্রাণী, আসুন একে রক্ষা করি’- এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে গজনী বিট অফিস চত্ত্বরে এ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।

কাংশা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জহুরুল হকের সভাপতিত্বে কর্মশালায় বক্তব্য রাখেন, শেরপুর জেলা বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের বন্যপ্রাণী কর্মকর্তা সুমন সরকার, রাংটিয়া রেঞ্জ কর্মকর্তা ইলিছুর রহমান, গজনী বিট কর্মকর্তা সিদ্দিকুল আলম, তাওয়াকোচা বিট কর্মকর্তা মকরুল ইসলাম আকন্দ।

ওইসময় বক্তারা বলেন, রাংটিয়া রেঞ্জের ৩টি বিটের বনাঞ্চলে দীর্ঘদিন ধরে বন্যহাতির বিচরণ। এখানে বসবাস করে আসছে পাহাড়ী এলাকার লোকজন। বন্যহাতি খাবারের সন্ধানে মাঝে মধ্যে লোকালয়ে আসে। ওইসময় জানমালের ক্ষয়ক্ষতি করে। গ্রামবাসীরা মশাল জ্বালিয়ে ঢাকঢোল পিটিয়ে হাতি তাড়ানোর চেষ্টা করে। তবে বিভিন্ন কারণে হাতির মৃত্যুর ঘটনাও ঘটেছে। আবার হাতির হামলায় মানুষ আহত ও নিহতও হয়েছে। ফলে মানুষের সাথে হাতির দ্বন্দ্ব লেগেই আছে।

এজন্য হাতির হাত থেকে নিজেদের ও হাতিকেও রক্ষার জন্যে সচেতনতা জরুরী। যাতে লোকালয়ে এলেও তাদের ওপর কেউ কোনো অত্যাচার না করে। হাতি যাতে নিরাপদে গভীর জঙ্গলে ফিরে যেতে পারে। এতে হাতিও থাকবে, মানুষও থাকবে। এছাড়া হাতির হামলায় জানমালের ক্ষতি হলে সরকারিভাবে ক্ষতিপূরণ দেয়া হচ্ছে। এজন্য বনাঞ্চলে বসবাসকারীদের কৌশলে হাতি তাড়ানোর ব্যবস্থাসহ আরো সচেতন হওয়ার আহবান জানান বক্তারা। উক্ত কর্মশালায় অংশ নেন, বনাঞ্চলের বসবাসকারী লোকজন।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন