গোলের পর দু’হাত তুলে কিংবদন্তিকে স্মরণ করলেন মেসি

মেসি
❏ সোমবার, নভেম্বর ৩০, ২০২০ খেলা

স্পোর্টস আপডেট ডেস্ক- এই জার্সি পরে তিন বছর খেলেছেন দিয়াগো ম্যারাডোনা। ৩৬ ম্যাচে গোল আছে ২২টি। সেই ক্লাবের প্রাণভোমরা তারই স্বদেশী লিওনেল মেসি। আর তাইতো বার্সেলোনার এমন স্মরণ ফুটবল লিজেন্ডকে। এতো গেল বার্সেলোনা-ওসাসুনা ম্যাচের আগে।

ম্যাচের মধ্যে সাতাশ বছর আগের স্মৃতি ফিরে এল। সেটি ফেরালেন লিওনেল মেসি। প্রয়াত কিংবদন্তি এবং তার প্রাক্তন গুরু দিয়াগো ম্যারাডোনাকে গোল করে শ্রদ্ধা জানিয়ে। বার্সার জার্সির ভেতরে ছোটবেলার ক্লাব নিওয়েলস ওল্ড বয়েজের ‘১০’ নম্বর জার্সি পরেই নেমেছিলেন মেসি। ক্যারিয়ারের পড়ন্ত বেলায় যে ক্লাবে খেলেছেন ম্যারাডোনা নিজেও।

ম্যাচের ৭৩ মিনিটে ওসাসুনার তিন ডিফেন্ডারকে হেলায় পরাস্ত করে বক্সের উপর থেকে বাঁ পায়ের শটে গোল করেন মেসি। তার পরেই বার্সেলোনার জার্সি খুলে ফেলেন শরীর থেকে, বেরিয়ে পড়ে ছোটবেলার ক্লাবের সেই স্মৃতিবিজড়িত জার্সি। দু’হাত আকাশের দিকে তুলে তাকিয়ে থাকেন কিছুক্ষণ।

কিন্তু মাঠের রেফারি বিষয়টি আবেগের দৃষ্টিতে দেখেননি। তিনি সঙ্গে সঙ্গে বার্সা অধিনায়ককে হলুদ কার্ড দেখান। কিন্তু এই হলুদ কার্ড দেখিয়ে স্বস্তিতে নেই রেফারি ম্যাথিউ। তিনি নিজেই এখন চান, ফিফা যেন মেসির হলুদ কার্ড প্রত্যাহার করে নেয়। ম্যাচ শেষে ফিফা’র কাছে হলুদ কার্ড প্রত্যাহারের আবেদন জানিয়েছেন রেফারি নিজেই।

উল্লেখ্য, ফুটবল গ্রহের সর্বকালের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় ডিয়েগো ম্যারাডোনার মৃত্যুর পর এটিই ছিল বার্সেলোনা ও লিওনেল মেসির প্রথম ম্যাচ। বার্সেলোনা ঠিক করে রেখেছিল প্রয়াত ম্যারাডোনাকে শ্রদ্ধা জানানো হবে। মেসি ঠিক করে রেখেছিলেন তার ‘আইডল’ ও মহান পূর্বসূরিকে শ্রদ্ধা জানাবেন।

স্থানীয় সময় দুপুর ২টায় ম্যাচ শুরুর আগে দু’দলের খেলোয়াড়েরা দাঁড়ান বৃত্তাকারে। মাঝরেখার কেন্দ্রবিন্দুতে রাখা হয় সেই বিখ্যাত ১০ নম্বর জার্সিটি, যেটি পরে ১৯৮২ সালে বার্সেলোনার হয়ে প্রথম ম্যাচ খেলতে নেমেছিলেন ম্যারাডোনা। বিউগলের সুরে ফুটবলের আর্জেন্টাইন বরপুত্রকে জানানো হয় বিদায় অভিবাদন। নীরবতা পালিত হয় এক মিনিট। গ্যালারিতে তুলে ধরা হয় ম্যারাডোনার ১০ নং জার্সি, সেই জার্সি পরা ম্যারাডোনার মুখ ভেসে ওঠে বড় পর্দায়। মাথা নুইয়ে থাকা বার্সেলোনার বর্তমান ১০ নম্বরকেও ধরে ক্যামেরা। বিষন্ন সেই মুখ, চোখ দুটি যেন বাষ্পাকুল।