বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে করোনা টিকার অনুমোদন দিলো যুক্তরাজ্য

vaccine
❏ বুধবার, ডিসেম্বর ২, ২০২০ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে ফাইজার-বায়োএনটেকের তৈরি করোনা ভাইরাসের টিকার অনুমোদন দিয়েছে যুক্তরাজ্য। মহামারীতে যারা সবচেয়ে বেশি ঝুঁকি তাদের প্রতিষেধক হিসেবে ফাইজার ও বায়োএনটেকের টিকা দেয়া শুরু করতে যাচ্ছে দেশটির সরকার।

বুধবার অনুমোদন দেয়ার পর ব্রিটেন সরকার বলছে, আগামী সপ্তাহে থেকে তারা এই টিকার প্রয়োগ করতে যাচ্ছে।

দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ফাইজার/বায়েএনটেকের করোনার টিকা ব্যবহারে অনুমোদন দিতে মেডিসিনস অ্যান্ড হেলথকেয়ার প্রোডাক্টস রেগুলেটরি এজেন্সির (এমএইচআরএ) সুপারিশ আজ গ্রহণ করা হয়েছে।

বিবৃতিতে বলা হয়, আগামী সপ্তাহ থেকে যুক্তরাজ্যজুড়ে এই টিকা পাওয়া যাবে। তবে টিকার দেয়ার ক্ষেত্রে ঝুঁকিপূর্ণদের বেশি অগ্রাধিকার দেয়া হবে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, টিকার প্রয়োগ শুরু হলেও মানুষজনকে এখনো সতর্ক অবস্থায় থাকতে হবে এবং করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে স্বাস্থ্য সতর্কতার নিয়মকানুন কড়াকড়িভাবে পালন করতে হবে। তার মানে এখনো সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা এবং মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। সেই সঙ্গে উপসর্গ দেখা গিলেই পরীক্ষা করাতে হবে এবং তাদের বিচ্ছিন্ন করে রাখতে হবে।

এখনও পর্যন্ত ছয়টি দেশে ৪৩ হাজার ৫০০ জনের শরীরে ফাইজার ও বায়োএনটেক টিকার কার্যকারিতা পরীক্ষা করে দেখা হয়েছে এবং এতে ঝুঁকিপূর্ণ কিছু দেখা যায়নি। এই টিকাটির ক্ষেত্রে একেবারে ভিন্ন ধরনের একটি পদ্ধতি ব্যবহার করা হয়েছে যাতে মানবদেহের রোগ প্রতিরোধী ব্যবস্থাকে প্রশিক্ষিত করে তোলার জন্য ভাইরাসটির জেনেটিক কোড শরীরে ইনজেক্ট করা হয়।

আগের পরীক্ষাগুলোতে দেখা গেছে টিকা দেওয়ার ফলে শরীরে এন্টিবডি এবং রোগ প্রতিরোধী ব্যবস্থার আরও একটি অংশ যা টি সেল নামে পরিচিত সেটিও তৈরি হয়। তিন সপ্তাহ ব্যবধানে এই টিকার দুটো ডোজ দিতে হয়।

যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানি, ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, দক্ষিণ আফ্রিকা এবং তুরস্কে এই টিকার পরীক্ষা চালানো হয়েছে।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন