ধর্ষণ ও সহযোগিতার অভিযোগে নুরের তিন সহযোগী রিমান্ডে

◷ ৬:৩৯ অপরাহ্ন ৷ বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ৩, ২০২০ ঢাকা
nur

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী ধর্ষণ ও ধর্ষণে সহযোগিতার অভিযোগে লালবাগ থানার মামলায় ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নূরের তিন সহযোগীকে দুইদিন করে হেফাজতে নিয়ে জিজ্সাবাদের অনুমতি দিয়েছে আদালত।

বৃহস্পতিবার (৩ ডিসেম্বর) ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট শহিদুল ইসলাম এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এর আগে একই মামলায় মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট বেগম ইয়াসমিন আরা তাদের গ্রেফতার দেখানোর আবেদন মঞ্জুর করেন।

এ তিনজন হলেন- বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক মো. সাইফুল ইসলাম ও নাজমুল হাসান সোহাগ এবং সংগঠনের ঢাবি শাখার সহ-সভাপতি মো. নাজমুল হুদা। এর আগে এ তিন আসামির পাঁচদিন করে রিমান্ড আবেদন করা হয়।

আসামিরা কোতোয়ালি থানার অপর ধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার ছিল। আজ লালবাগ থানার মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়।

গত ১১ অক্টোবর মগবাজার ও আজিমপুরে অভিযান চালিয়ে এজাহারভুক্ত নাজমুল ও সাইফুলকে গ্রেফতার করে ডিবি। এরপর গত ৪ নভেম্বর বংশাল থানাধীন রায়সাহেব বাজার মোড় থেকে নাজমুল হাসান সোহাগকে গ্রেফতার করা হয়।

এর আগে, গত ২০ সেপ্টেম্বর রাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) এক শিক্ষার্থী লালবাগ থানায় ভিপি নূরসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে একটি ধর্ষণ মামলা করেন।

এ মামলার প্রধান আসামি ছাত্র অধিকার পরিষদের আহ্বায়ক (সাময়িক অব্যাহতিপ্রাপ্ত) হাসান আল মামুন। নূর একই সংগঠনের যুগ্ম আহ্বায়ক। বাকি চার আসামি নাজমুল হাসান সোহাগ, সাইফুল ইসলাম, নাজমুল হুদা এবং আবদুল্লাহ হিল বাকী।

তারা সবাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও ছাত্র অধিকার পরিষদের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মী। এর মধ্যে হাসান আল মামুনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও অন্যদের বিরুদ্ধে ধর্ষণে সহযোগিতার অভিযোগ আনা হয়।