• আজ ৩রা মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ত্রিশালে সেতু আছে যাতায়াতের সড়ক নেই!

◷ ৮:৫৭ পূর্বাহ্ন ৷ রবিবার, ডিসেম্বর ৬, ২০২০ ময়মনসিংহ
Trishal news

মামুনুর রশিদ ত্রিশাল ( ময়মনসিংহ)  প্রতিনিধি:  দূর থেকে চোখে পড়ে ধানের সোনালী শীষের ভূবনে কনক্রিটের সেতু। এ যেন ধানের ক্ষেতে সেতু! ত্রিশ লাখ টাকার কনক্রিটের সেতু নির্মিত হলেও দুই পাশের সংযোগ কোনো রাস্তা নেই। সেতুর দুই পাশেই ধানের ক্ষেত। এমন এক সেতুর দেখা মিলেছে ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলায়।

যোগাযোগ ব্যবস্থাকে ত্বরান্বিত করতে নদী বা খালের ওপর নির্মিত হয় কনক্রিটের সেতু। যা ব্যবহার করে উপকৃত হয় সকল শ্রেণির মানুষ।

অথচ সড়ক না থাকলেও উপজেলার আমিরাবাড়ী ইউনিয়নের নারায়নপুর গুজিয়াম গ্রামে একটি সেতু নির্মিত হয়েছে। ঢাকা-ময়মনসিংহ সড়কের পাশেই ডুসের খালের ওপর নির্মিত হয়েছে কনক্রিটের ওই সেতুটি।

২০১৮-১৯ অর্থবছরে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের সেতু ও কালভার্ট নির্মাণ প্রকল্পের অর্থায়নে নির্মিত হয় একটি সেতুটি। উপজেলার আমিরাবাড়ী ইউনিয়নের নারায়নপুর গুজিয়াম গ্রামের তাজুল খলিফার বাড়ির পাশে ডুসের খালের ওপর ওই সেতু নির্মানে ব্যয় হয় প্রায় ৩০ লাখ ৩ হাজার টাকা।

সম্প্রতি ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের ওপর দাঁড়িয়ে দেখা মিলে বানার নদীর সঙ্গে যুক্ত হওয়া ডুসের খালের ওপর নির্মিত সেতুটির। সেতুর কাছে যাওয়ার কোন রাস্তা না পেয়ে স্থানীয় রুস্তম আলী নামে এক ব্যক্তির বসতবাড়ির ভিতর দিয়ে যেতে হয় সেতুটিতে। দুর থেকে বুঝা যায় ধান ক্ষেতের মাঝখানে যেন ঠাঁই দাড়িয়ে একটি সেতু। কাছে গিয়েও সড়কের কোন অস্তিত্ব চোখে পড়েনি। সেতুর পূর্ব পাশের প্রবেশপথ জুড়ে লাউ গাছের গুঁড়ি। যানবাহন বা মানুষের চলাচলের কোন চি‎‎হ্ন না পাওয়া যায়নি।

স্থানীয় আমিরাবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনিছুর রহমান ভুট্টো বলেন, সেতুটির নির্মাণ কাজ শেষ হলেও রাস্তা করা যায় নি। রাস্তার জন্য প্রকল্প জমা দেয়া আছে।

সড়কহীন সেতু নির্মাণের বিষয়টি জানতে চাইলে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আলমগীর হোসেন জানান, চলতি মৌসুমের ধান কাটা শেষ হলেই সেতুর দুথপাশে রাস্তা নির্মাণের কাজ শুরু করা হবে।