সংবাদ শিরোনাম
  • আজ ৩রা মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

’বঙ্গবন্ধু’র ভাস্কর্য অবমাননার প্রতিবাদে চাঁদপুরে বিক্ষোভ মিছিল

◷ ১০:৫২ অপরাহ্ন ৷ রবিবার, ডিসেম্বর ৬, ২০২০ চট্টগ্রাম
Chadpur news

মাহফুজুর রহমান, চাঁদপুর প্রতিনিধি: সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, বাংলাদেশের মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য অবমাননার প্রতিবাদে চাঁদপুরে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রোববার (৬ ডিসেম্বর) বিকেলে চাঁদপুর জেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ের সামনে থেকে জেলা, সদর উপজেলা ও পৌর আওয়ামী লীগের আয়োজনে মিছিলটি চাঁদপুর শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। এতে সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা অংশ নিয়ে তীব্র প্রতিবাদ ও মিছিল করেন।

জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক তাফাজ্জল হোসেন এসডু পাটোয়ারী পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি আলহাজ্ব মোহাম্মদ ইউসুফ গাজী, ডা. জে আর ওয়াদুদ টিপু, সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাড. মজিবুর রহমান ভূইয়া, উপ-দপ্তর সম্পাদক এডভোকেট রনজিত রায় চৌধুরী, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক অ্যাড. বিনয় ভূষন মজুমদার, যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক মাসুদ আলম মিল্টন, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী অধ্যাপিকা মাসুদা নুর খান।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আইয়ুব আলী বেপারী, অ্যাড. বদিউজ্জামান কিরন, পৌর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রাধা গোবিন্দ গোপ, সাধারণ সম্পাদক আমিনুর রহমান বাবুল, যুবলীগের যুগ্ন আহবায়ক মাহফুজুর রহমান টুটুল, চাঁদপুর পৌরসভার প্যানেল মেয়র মোহাম্মদ আলী মাঝি, চাঁদপুর সদর উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক হুমায়ুন কবির সুমন, জেলা যুব মহিলা লীগের সভানেত্রী কাউন্সিলর ফরিদা ইলিয়াস, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মোঃ জহির উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন, পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি কাউন্সিলর সোহেল রানা, সাধারণ সম্পাদক রবিন পাটোয়ারীসহ মানববন্ধনে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ অঙ্গসহযোগী দলের নেতা-কর্মীরা উপিস্থত ছিলেন।

বক্তারা বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে বাংলাদেশের জন্ম হতো না, এ দেশ স্বাধীন হতো না, আর সেই জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্যের অবমাননা এ জাতি মেনে নেবে না। সাম্প্রদায়িক শক্তি আবারও দেশে মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে। এর সকল কিছুর পিছনে রয়েছে জামাত-বিএনপি জোট। দেশের প্রতিটি উপজেলায় একটি করে জাতির পিতার ভাস্কর্য তৈরি করা হবে। মৌলবাদী ও সাম্প্রদায়িক গুষ্টির বিষদাঁত আমরা ভেঙ্গে দিব। ঐতিহ্যকে ধারণ করার জন্য ভাস্কর্য পূজার জন্য নয়। বিশ্বে এরকম বহু ভাস্কর্য রয়েছে’।

তারা বলেন, ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাত ধরে আমরা একটি সুন্দর সুখী সমৃদ্ধ বাংলাদেশ পেয়েছি। আজ জাতির পিতার নির্মিত ভাস্কর্য নিয়ে একটি চক্র উঠে পড়ে লেগেছে। এর সাথে জড়িতদের কঠিন শাস্তির দাবী জানাই। কোন অপশক্তি এই বাংলার মাটিতে টিকে থাকতে দেওয়া হবে না। বাংলার মাটিতে মৌলবাদ ও জঙ্গিবাদের আগেও কোন স্থান ছিল না এখনো থাকবে না’।

‘মূর্তি আর ভাস্কর্য এক নয়। মূর্তি হচ্ছে যার উপাসনা করা হয়। আর ভাস্কর্য কোন ব্যক্তি বা রাষ্ট্রের ইতিহাস-ঐতিহ্যকে স্মরণ করার জন্য তৈরি করা হয়। কিন্তু বাংলাদেশের কিছু মৌলবাদী গোষ্ঠী মূর্তি ও ভাস্কর্যের ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে দেশের ধর্মপ্রাণ মানুষকে ভুল বার্তা দিচ্ছে। আমরা আমরা এই বিজয়ের মাসে এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।’