সংবাদ শিরোনাম

করোনাভাইরাস: আট মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন শনাক্তমির্জাপুরে গরু চুরি বন্ধে ৫ দফা দাবিতে সংবাদ সম্মেলনশেরপুর পৌর নির্বাচনে জাল ভোট দেয়ার সময় গ্রেফতার-১ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশ ওয়ানডে দল ঘোষণামানবতার হাত বাড়ালেন ঝালকাঠির যুবক “ছবির”টাঙ্গাইলে বিএনপি মেয়র প্রার্থী নির্বাচনী প্রচারনায় ছাত্রদলের একাংশবাউফলে ট্রলির ধাক্কায় শিক্ষক নিহতলালমনিরহাটে তিস্তা নদী পুনরুদ্ধার ও তিন বিঘা এক্সপ্রেস চালুর দাবিতে মানববন্ধনটাঙ্গাইলে আ’লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থীর নির্বাচনী মতবিনিময় সভাসুপেয় পানির চাহিদা মেটাতে সুন্দরবনে ৮৮টি পুকুর পুনঃখনন করা হচ্ছে

  • আজ ২রা মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

‘স্বাধীনতা বিরোধীরাই ভাস্কর্যের বিরোধিতা করছে’- খাদ্যমন্ত্রী

◷ ১০:০৯ অপরাহ্ন ৷ সোমবার, ডিসেম্বর ৭, ২০২০ জাতীয়
sadhon

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, যারা দেশের মহান স্বাধীনতার বিরোধীতা করেছিল ও বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করেও যাদের মনোবাসনা পূর্ণ হয়নি, তারাই বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের বিরোধিতা করছে।

তিনি আজ সকালে মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত “মুজিব শতবর্ষ ও নিরাপদ খাদ্য দিবস-২০২১” উপলক্ষে বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের কার্যক্রমের অগ্রগতি বিষয়ক এক সভায় এ কথা বলেন।

সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম না হলে বাংলাদেশের জন্ম হতো না। দেশের কথা চিন্তা করলে বঙ্গবন্ধুর কথা স্মরণ করতেই হবে।

তিনি বলেন, যারা মহান স্বাধীনতার বিরোধীতা করেছিল ও বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার ষড়যন্ত্রে জড়িত ছিল তারাই বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের বিরোধীতা করছে।

সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, জনগণের সাংবিধানিক অধিকার ভেজালমুক্ত নিরাপদ খাদ্যের নিশ্চয়তা বিধানে বর্তমান সরকারের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় ২০১৩ সালে নিরাপদ খাদ্য আইন পাস হয় এবং ২০১৫ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ। মানুষকে সচেতন করতে সারাদেশে জনসচেতনামূলক বিভিন্ন কর্মসূচি আয়োজনের উপর জোর দেন খাদ্যমন্ত্রী।

জনগণের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে ৬৪টি জেলা, সকল উপজেলা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ভোক্তা, খাদ্য নির্মাতা, নির্বাচিত সকল পর্যায়ের প্রতিনিধি ও স্থানীয় প্রশাসনকে সঙ্গে নিয়ে প্রচার-প্রচারণামূলক কার্যক্রম গ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

কিন্তু কোভিড-১৯ এর কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় প্রচার-প্রচারণামূলক কার্যক্রম কিছুটা ব্যাহত হয়। এ প্রেক্ষাপটে মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে ২৫ টি উপজেলায় প্রচার প্রচার কার্যক্রম ইতিমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। প্রচার প্রচারণা জোরদার করার মাধ্যমে জনগণের সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য ইতিমধ্যেই সাভার উপজেলা এবং নরসিংদী জেলায় ক্যারাভান রোড শো অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ কর্তৃক ২০১৯ সালে ৫৭টি এবং ২০২০ সালে ৩০টি সর্বমোট ৮৭ টি হোটেল রেস্টুরেন্টকে গ্রেড প্রদান করার জন্য নির্ধারণ করা হয়েছে। এছাড়া বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের অধীনে বাজার মনিটরিং কমিটি কর্তৃক গত জুলাই থেকে ৩০ নভেম্বর পযন্ত ৫২টি বাজার মনিটরিং কার্যক্রম পরিচালনা করা হয় এবং এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট কর্তৃক ৫১টি মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে ৬৮ লক্ষ টাকা অর্থদন্ড আদায় করা হয়।

এছাড়া বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরে উদ্ভাবনী কর্মসূচিতে গ্রেড প্রাপ্ত হোটেল-রেস্তোরাঁ সমূহকে অ্যাপ ভিত্তিক মনিটরিং (নজর) এর আওতায় আনার জন্য হোটেল কস্তুরীর সাথে পাইলটিং কার্যক্রম সম্পন্ন করেছে নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ। এই অ্যাপস এর মাধ্যমে নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ তার কার্যালয় থেকেই এ সমস্ত হোটেল-রেস্তোরাঁর কিচেনের পরিবেশ মনিটরিং করতে পারবে। পর্যায়ক্রমে নজরদারীর তাজ সারাদেশে করা হবে বলে সভায় জানানো হয়।

খাদ্য সচিব ডক্টর মোছাম্মৎ নাজমানারা খানুমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যের মধ্যে বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান মো. আব্দুল কাইয়ূম সরকার, সচিব আব্দুল নাসের খান এবং খাদ্য কর্তৃপক্ষের অন্যান্য সদস্য ও মন্ত্রণালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।