সংবাদ শিরোনাম
  • আজ ২৩শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ভাস্কর্য ইস্যুতে বিএনপিকে অবস্থান পরিষ্কার করতে বললেন তথ্যমন্ত্রী

২:৫৯ অপরাহ্ন | বুধবার, ডিসেম্বর ৯, ২০২০ জাতীয়
তথ্যমন্ত্রী

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক- চলমান ভাস্কর্য ইস্যুতে অবস্থান পরিষ্কার করতে বিএনপির প্রতি আহ্বান জানিয়েছে তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

বুধবার (৯ ডিসেম্বর) জাতীয় প্রেস ক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শেখ ফজলুল হক মণির ৮১তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এই আহ্বান জানান।

বিএনপির উদ্দেশ্যে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আপনারা তো জিয়াউর রহমানের ভাস্কর্য সারা বাংলাদেশে বানিয়েছেন। আপনারা আপনাদের বক্তব্য স্পষ্ট করুন। এই অপশক্তির বিরুদ্ধে আপনারা বক্তব্য দিন, এটা করতে আপনাদের এত লজ্জা কেন?

এই বিষয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে প্রশ্ন করা হয়েছিল জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‘তাকে প্রশ্ন করা হয়েছিল ভাস্কর্য নিয়ে তার অবস্থান কী। তিনি নির্লজ্জের মতো বললেন, ‘এটি আমার কাছে কোনও ইস্যু নয়।’ সারাদেশ যখন উত্তাল, আর এটা ওনার কাছে ইস্যু না। ওনার ইস্যু হচ্ছে তারেক রহমানের মতো যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামিকে কিভাবে দেশে ফেরত আনা যায়, দুর্নীতির দায়ে সাজাপ্রাপ্ত খালেদা জিয়ার মুক্তি কিভাবে করা যায়, খালেদা জিয়ার হাঁটুর ব্যাথা, পায়ের ব্যাথা ওনার কাছে ইস্যু।’’

তিনি বলেন, ‘‘আমি মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাহেবের কাছে প্রশ্ন রাখতে চাই, আপনি বক্তব্যের মাধ্যমে আপনাদের অবস্থান পরিষ্কার করুন। অন্যথায় অপশক্তির পেছনে ইন্ধনদাতা হিসেবে জনগণ আপনাদের চিহ্নিত করবে।’

১৯৭১ সালে পরাজিত শক্তির পরবর্তী প্রজন্মই ভাস্কর্যবিরোধী বক্তব্য দিচ্ছে মন্তব্য করে হাছান মাহমুদ বলেন, ‘অর্থনৈতিক, সামাজিক ও মানব উন্নয়ন সূচকে যখন দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, তখনই স্বাধীনতাবিরোধীদের পরবর্তী প্রজন্ম নতুন অপকৌশলে লিপ্ত হয়েছে। যারা চায়না দেশ এগিয়ে যাক। ’

‘১৯৭১ সালে সেই শক্তি ফতোয়া দিয়েছিল, পাকিস্তানের বিরুদ্ধে যারা লড়াই করছে তারা কাফের। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করা ঈমানের বরখেলাপ, পাকিস্তানকে ভাঙতে চাওয়া ঈমানের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র। স্বাধীনতা যুদ্ধে যখন মা-বোনদের ইজ্জত লুণ্ঠন করা হচ্ছিল তখন সেই ধর্ষণকারীদের স্বপক্ষে যুক্তি দেওয়া হয়েছিল। তারা বলেছিল এরা গনিমতের মাল, তাদের ভোগ করা জায়েজ। তাদের পরবর্তী প্রজন্মই এখন ভাস্কর্যবিরোধী বক্তব্য দিচ্ছে। ’

‘এ দেশে যুগ যুগ ধরে ভাস্কর্য আছে, অনেক ভাস্কর্য নির্মিত হয়েছে। এখন বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণেই তাদের গাত্রদাহ শুরু হয়েছে। তারা এটিকে গ্রহণযোগ্য করার জন্য আবার মাঝে-মধ্যে বঙ্গবন্ধুর পক্ষেও দু’একটি কথা বলছে। এটি তাদের নতুন ছলচাতুরি। তাদের পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য অপকৌশলের অংশ। ’

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের প্রথম পরিচয় আমরা বাঙালি। তারপর কে হিন্দু, কে মুসলিম সেটা বিবেচ্য বিষয়। যে ধর্মান্ধ মৌলবাদী গোষ্ঠীকে পরাজিত করে দেশ প্রতিষ্ঠিত করা হয়েছে। এ স্বাধীন দেশে সেই অপশক্তিকে আর মাথাচাড়া দিতে দেওয়া যায় না। ’

তিনি বলেন, ‘আরব দেশ থেকে সাহায্য নিয়েই নিজেদের প্রতিষ্ঠান চালান, কিন্তু তাদের দিকে দেখেন না? সমস্ত আরব দেশে বিভিন্ন ভাস্কর্য রয়েছে। তাই এ নিয়ে জনগণকে বিভ্রান্ত না করে চোখ মেলে পৃথিবীর দিকে তাকান। অন্যথায় সমগ্র দেশ যেভাবে বিক্ষোভে ফুঁসে উঠেছে, এর আগুন আপনাদের গায়েও লাগবে। ’