🕓 সংবাদ শিরোনাম

আমাদের যা আছে, তা দিয়েই সামনে এগিয়ে যাব: প্রধানমন্ত্রীএসএসসিতে জিপিএ-৫ পেয়েও অর্থের অভাবে উচ্চ শিক্ষা অনিশ্চিত শুভ’রমহামারি এখনই শেষ হচ্ছে না, সৃষ্টি হতে পারে নতুন ভ্যারিয়েন্ট: টেড্রোসখাগড়াছড়িতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২নৌকা থেকে লাফিয়ে পালালো পাচারকারী, বিপুল আইস-ইয়াবা উদ্ধারশাবি উপাচার্যের বিরুদ্ধে যত অভিযোগ শিক্ষার্থীদেরমালয়েশিয়ায় প্রতারণার অভিযোগে নাবিস্কো ভাইয়া গ্রুপের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলনবিএনপি বহিষ্কার করলেও অন্য দলে যোগ দেব না: তৈমূরগ্লাস সুমনের মাদক কারবারের প্রধান সহযোগী গ্রেফতারমনোহরদীর দরগাহ মেলা শুরু, নজর কাড়ছে বড় মাছের বাজার

  • আজ বুধবার, ৫ মাঘ, ১৪২৮ ৷ ১৯ জানুয়ারি, ২০২২ ৷

বাবুনগরীকে ৫ মের কথা স্মরণ করে দিলেন মেয়র তাপস

tapos
❏ বুধবার, ডিসেম্বর ৯, ২০২০ ঢাকা

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ হেফাজতে ইসলামের আমির জুনায়েদ বাবুনগরীকে উদ্দেশ্য করে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস বলেছেন, জনাব বাবুনগরী, আপনাকে স্মরণ করে দিতে চাই সেই ৫ মের কথা। ভুলে গেছেন?

“মনে করেছিলেন, শাপলা চত্বর দখল করলেই বাংলাদেশ দখল হয়ে যাবে। জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা যত দিন জীবিত আছি এই বাংলাদেশকে কোনো অপশক্তি দখল করতে পারবে না।”

বুধবার (৯ ডিসেম্বর) সুপ্রিম কোর্টের প্রধান ফটকের সামনে আয়োজিত মানববন্ধনে তাপস এ বক্তব্য দেন। ‘জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য স্থাপনে মৌলবাদীদের বাধা প্রদান ও বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙচুরের প্রতিবাদে’ মানববন্ধনটির আয়োজন করে বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ।

মেয়র তাপস বলেন, বঙ্গবন্ধুর বিরুদ্ধে অপশক্তির এ আক্রমণ আজ নতুন নয়। ১৯৭৫ সালে জাতির পিতাকে সপরিবারে হত্যার মাধ্যমে তারা মনে করেছিল যে, বাংলার বুক থেকে বঙ্গবন্ধু নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবেন। কিন্তু তা হয়নি। কারণ বঙ্গবন্ধু মানেই বাংলাদেশ। বঙ্গবন্ধু একটি চেতনা, একটি আদর্শ, যেটি বাঙালি জাতির অন্তরে গেঁথে আছে। কোনোভাবেই সেটা মুছে দেওয়া যাবে না। নিশ্চিহ্ন করা যাবে না।

ব্যারিস্টার তাপস বলেন, ভাস্কর্য ভেঙে তারা মনে করেছে তারা বিজয়ী হয়েছে। যখনই সংবিধানবিরোধী কার্যক্রম হয়েছে, যখনই গণতন্ত্রকে আক্রমণ করা হয়েছে, যখন মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় আঘাত এসেছে আমরা আইনজীবী অঙ্গন তার দাঁতভাঙা জবাব সবসময় দিয়েছি। এখনও আমরা প্রস্তুত দাঁতভাঙা জবাব দেওয়ার জন্য।

তিনি বলেন, আমরা শান্তিপ্রিয়, আমরা সুন্দরভাবে দেশকে এগিয়ে নিয়ে চলার জাতি গঠনে নিয়োজিত আছি। কিন্তু তার মানে এই না যে, আপনারা (বাবুনগরী) পানি ঘোলা করে জাতির পিতার প্রতি কটূক্তি করে, মনে করছেন আবার জঙ্গিবাদের দিকে দেশকে নিয়ে যাবেন।

তাপস আরও বলেন, আবারও সেই বাংলাভাই সৃষ্টি করবেন, সেই যুদ্ধাপরাধীদের আরেকবার আপনারা আসন গ্রহণ করাবেন। সেই সুযোগ আর ইনশাআল্লাহ বাংলার মাটিতে আমরা হতে দেব না। জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে যেভাবে আমরা যুদ্ধাপরাধীদের বিচার সম্পন্ন করেছি যেভাবে বাংলার বুক থেকে আমরা চিরতরে জঙ্গিবাদ নির্মূল করেছি, ইনশাআল্লাহ শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলার বুক থেকে সব মৌলবাদ নির্মূল হবে। না হলে আপনারা যে স্লোগান একসময় দিয়েছিলেন, বাংলা হবে আফগান; সেই আফগানিস্তানে আপনাদের পাঠিয়ে দেওয়া হবে।

সমাবেশে ভার্চুয়ালভাবে যুক্ত হয়ে বক্তব্য রাখেন পরিষদের আহ্বায়ক জ্যেষ্ঠ আইনজীবী ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন ও যুগ্ম আহ্বায়ক আবদুল বাসেত মজুমদার। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল এসএম মুনীর, মোখলেসুর রহমান বাদল, ড. বশির আহমেদ, মোমতাজ উদ্দিন আহমদ মেহেদী, নাহিদ সুলতানা যুথী, আজহারুল্লা ভূইয়া, সানজিদা খানম, শাহ মঞ্জুরুল হক, কে এম মাসুদ রুমি, একেএম আমিন উদ্দিন মানিক, মোজম্মেল হক রানা, খন্দকার রেজা ই রাকিব, শামীম সরদার, ইমরানুল কবির, মশিউর রহমান, শেখ ওবায়দুর রহমান, হুমায়ুন কবির চৌধুরী প্রমুখ আইনজীবীরা।