সংবাদ শিরোনাম

১১ ঘণ্টা পর শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে ফেরি চলাচল স্বাভাবিকপাবনায় চিংড়ি মাছের শরীরে আল্লাহপাকের নাম!স্কুল-কলেজ খোলার সিদ্ধান্ত ৪ ফেব্রুয়ারির পর: শিক্ষামন্ত্রীবিচারকের সঙ্গে অশোভন আচরণ: নিঃশর্ত ক্ষমার আবেদন কুষ্টিয়ার এসপি’রফরিদপুরের সেই বীর মুক্তিযোদ্ধার পাশে উপজেলা চেয়ারম্যানপ্রধানমন্ত্রী আপনি প্রথম টিকাটি নিন: মির্জা ফখরুললতিফ সিদ্দিকীর দখলে থাকা ৫০ কোটি টাকার সরকারি জমি উদ্ধারউত্তরবঙ্গে চা উৎপাদনে সর্বোচ্চ রেকর্ড অর্জনআশুলিয়ায় পুকুরে বিষ প্রয়োগ, মরে ভেসে উঠল ২ লক্ষাধিক টাকার মাছঅবশেষে দেশে অ্যান্টিবডি টেস্টের অনুমোদন দিলো সরকার

  • আজ ১১ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ইট দিয়ে সাংবাদিকের মাথা ফাটালেন ইউপি চেয়ারম্যান!

◷ ৪:২০ অপরাহ্ন ৷ শনিবার, ডিসেম্বর ১২, ২০২০ রংপুর
Kurigram Journalist photo 12.12.2020

ফয়সাল শামীম, স্টাফ রিপোর্টার: তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে কুড়িগ্রামে ইট দিয়ে সাংবাদিকের মাথা ফাটিয়ে দিয়েছেন ইউপি চেয়ারম্যান।

শুক্রবার সন্ধায় (১১ ডিসেম্বর) জেলার ভূরুঙ্গারী উপজেলা শহরে এ ঘটনা ঘটে। গুরুত্বর আহত সাংবাদিক এমদাদুল হক মন্টুকে উন্নত চিকিৎসার জন্য শনিবার সকাল ১১টায় ভুরুঙ্গামারী একটি ক্লিনিক থেকে রংপুরে পাঠানো হয়েছে।

খোজ নিয়ে জানা গেছে, ভূরুঙ্গামারী বাজারে ডিশ সংযোগের ক্যাবল পরিবর্তনের সময় এস.এম ডিজিটাল ক্যাবল নেটওয়ার্কের ফিডার মালিক মজনু ও আব্দুল কাদেরকে মারধর করেন ইউপি চেয়ারম্যান এ.কে.এম মাহমুদুর রহমান রোজেন।

বিষয়টি শুনে ওই নেটওয়ার্কের মালিক ও ভূরুঙ্গামারী প্রেসক্লাব সম্পাদক এমদাদুল হক মন্টু ঘটনাস্থলে পৌঁছলে সদর ইউপি চেয়ারম্যান ইট দিয়ে অতর্কিকে তার মাথায় আঘাত করেন। এতে তার মাথার মধ্যভাগ ফেটে ও থেঁতলে যায়। পরে এলাকাবাসী সাংবাদিক এমদাদুল হক মন্টুকে গুরুত্বর অসুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করে স্থানীয় একটি বেসরকারি ক্লিনিকে ভর্তি করায়। পরে শনিবার তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুরে প্রেরণ করা হয়।

এব্যাপারে ভুরুঙ্গামারী প্রেস ক্লাবের সভাপতি আনোয়ারুল হক জানান, ভুরুঙ্গামারী প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদকের উপর হামলার ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

উল্লেখ্য, এর আগেও ইউপি চেয়ারম্যান রোজেন পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের কর্মচারী, হাসপাতালের স্টাফ, বাজার মসজিদের সম্পাদক ও মুয়াজ্জিন সহ হাট-বাজারের প্রায় অর্ধ শতাধিক ব্যক্তিকে শারীরিক ভাবে লাঞ্ছিত করেন। গত এক মাস থেকে তিনি ইউনিয়ন পরিষদের দাপ্তরিক কার্যক্রম না করায় সরকারি কার্যক্রম স্থবির হয়ে পড়ার অভিযোগ উঠেছে। গত বৃহস্পতিবারের মাসিক সমন্বয় সভায় বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাগণ ইউপি চেয়ারম্যানের নিস্ক্রিয়তার কারণে সরকারি কার্যক্রম বাধাগ্রস্থ হচ্ছে মর্মে অভিযোগ করেন।

অভিযুক্ত চেয়ারম্যান বেশকিছু দিন ধরে মানষিক সমস্যায় ভুগছেন বলে জানান স্থানীয়রা।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দীপক কুমার দেব শর্মা বলেন, সদর ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে বিভাগীয় কর্মকর্তাগণের অভিযোগের কথা স্বীকার করেন।

উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নূরুন্নবী চৌধুরী খোকন জানান, ইউনিয়ন পরিষদের প্রথম সভায় নির্বাচিত ১ নং প্যানেল চেয়ারম্যান আনিছুর রহমান উক্ত ইউনিয়নের অসমাপ্ত কার্যক্রম পরিচালনা করবেন মর্মে মাসিক সমন্বয় সভায় সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।