• আজ রবিবার, ১৩ অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ ৷ ২৮ নভেম্বর, ২০২১ ৷

পাথর মেরে শিশু হত্যা: সেই যুবকের বিরুদ্ধে মামলা


❏ শনিবার, ডিসেম্বর ১২, ২০২০ আলোচিত

সময়ের কন্ঠস্বর ডেস্ক:সুনামগঞ্জ পৌরশহরের গুজাউড়া হাছননগরে এনামুল হক মুসা (তালহা) নামে চার বছরের শিশুকে মাথায় পাথর দিয়ে আঘাত করে নির্মমভাবে খুনের ঘটনায় থানায় হত্যা মামলা হয়েছে।

আটক ওমর ফারুকের বিরুদ্ধে শনিবার (১২ ডিসেম্বর) দুপুরে সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানায় মামলাটি করেছেন তালহার চাচা নুর হোসেন। ওমর ফারক সদর উপজেলার সুরমা ইউনিয়নের মঈনপুর গ্রামের মৃত ছান্দ আলীর ছেলে।

সুনামগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শহিদুর রহমান জানান, আটক ওমর ফারুকের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেছেন নিহত শিশু তালহার চাচা নুর হোসেন। ওমর ফারুককে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। পরে আদালত তাকে কারাগারে পাঠান।

এর আগে গতকাল শুক্রবার দুপুরে সুনামগঞ্জ পৌরশহরের গুজাউড়া হাছননগরে এনামুল হক মুসাকে (তালহা) মাথায় পাথর দিয়ে আঘাত করে নির্মমভাবে খুন করা হয়। ঘটনার পরপর স্থানীয় লোকজন ঘাতক ওমর ফারুককে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে। শিশু খুনের পুরো ঘটনাটি পাশের একটি সিসিটিভির ক্যামেরায় ধরা পড়ে।

সিসিটিভির ফুটেজে দেখা যায়, শিশু তালহা দুপুরে নিজ বাড়ির সামনে খেলা করছিল। এ সময় রাস্তা দিয়ে যাওয়া আব্দুল হালিম নামের ওই যুবক প্রথমে তালহাকে লাথি দিয়ে মাটিয়ে ফেলে দেয়। এরপর ভারী পাথর ও ইট দিয়ে তালহার মাথায় উপর্যুপরি আঘাত করে। এতে তালহার মাথা থেঁতলে যায় এবং প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়। রাস্তায় মোটরসাইকেল দিয়ে যাওয়া এক পথচারীর চিৎকার শুনে বাড়ির লোকজন গুরুতর আহত তালহাকে উদ্ধার করে তাৎক্ষণিক সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে অবস্থার অবনিত হলে সিলেটের এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। বিকেলে সিলেটের এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তালহাকে মৃত ঘোষণা করেন।