🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ রবিবার, ২০ অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ ৷ ৫ ডিসেম্বর, ২০২১ ৷

মাহফিলে যাবার গাড়ি কিনতে স্ত্রী-সহ শ্বশুর-শ্বাশুড়িকে পিটিয়ে হাসপাতালে পাঠালেন ইমাম!

মাহফুজুর রহমান হাকিমপুরী
❏ রবিবার, ডিসেম্বর ১৩, ২০২০ খুলনা

ঝিনাইদহ শৈলকুপা প্রতিনিধি, সময়ের কণ্ঠস্বর- পেশায় তিনি একজন ইমাম। স্থানীয় একটি মসজিদে ইমামতির পাশাপাশি নতুন করে শুরু করেছেন ওয়াজ মাহফিল। সেই সুবাদে বিভিন্ন স্থানে ওয়াজ মাহফিলে যেতে লাগবে নিজের মোটর গাড়ি। আর সেই গাড়ি কেনার জন্য লাগবে প্রায় ২০ লাখ টাকা।

সেই টাকার ব্যবস্থা করতেই স্বামী যৌতুকের দাবী করেছিলেন স্ত্রী ও শ্বশুরবাড়ির কাছে! তবে শেষতক নানা চেষ্টাতেও সেই টাকা আদায় না করতে পেরে স্ত্রী ও শ্বশুর-শাশুড়িকে বেধড়ক মারধর করবার অভিযোগ উঠেছে সেই নব্য বক্তা ও ইমামের বিরুদ্ধে ।

ঝিনাইদহের শৈলকুপায় গতকাল শুক্রবার সকাল ৯টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। যৌতুকের দাবী মেটাতে অক্ষম শ্বশুর-শ্বাশুরি ঘটনার দিন জামাইয়ের হাতে বেধড়ক মারপিটের শিকার হয়ে গুরুতর আহত অবস্থায় ভর্তি হয়েছেন হাসপাতালে।

অভিযুক্ত ওই ইমামের নাম মাহফুজুর রহমান হাকিমপুরী। তিনি শৈলকুপার হাকিমপুর গ্রামের খলিলুরর হমানের ছেলে। স্থানীয় শেখপাড়া বাসস্ট্যান্ড জামে মসজিদের ইমাম তিনি।

স্থানীয় এবং ঘটনার শিকার পরিবারের কাছ থেকে জানা গেছে, ইমাম মাহফুজুর রহমান দ্বিতীয় বিয়ে করেন শান্তিডাংগা গ্রামের আজিজুর রহমানের মেয়েকে। ইমামতি পেশার সঙ্গে বিভিন্ন এলাকায় ওয়াজ করেন তিনি। এ জন্য গাড়ি কেনার প্রয়োজন হলে শ্বশুর আজিজুর রহমানের কাছ থেকে ২০ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন। কিন্তু আজিজুর রহমান ওই টাকা দিতে ব্যর্থ হলে ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে মারধর করেন মাহফুজুর। এ সময় স্ত্রী ও শাশুড়িকেও বেধড়ক পেটান তিনি।

স্থানীয়রা এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন। দ্বিতীয় স্ত্রী জানিয়েছেন, এর আগে যৌতুক দাবি করায় মাহফুজুরের বিরুদ্ধে কোর্টে মামলা করেছিলেন তার প্রথম স্ত্রী।

এই ঘটনার বিচার চেয়ে আহত আজিজুর রহমান বলেন, ‘মেয়ের জামাই প্রায়ই আমার কাছে গাড়ি কেনা বাবদ ২০ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন। আমি গরিব হওয়ায় টাকা দিতে পারিনি। ’

অন্যদিকে এই ঘটনা সম্পর্কে জানতে চাইলে, অভিযুক্ত মাহফুজুর রহমান বলেন, ‘রাগের মাথায় আমি মারপিট করেছি। আমার ভুল হয়েছে।’

এ বিষয়ে শৈলকুপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘মারধরের অভিযোগ পেয়েছি, বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’