কোরআন মাহফিলে আসা শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগ

৫:৪৮ অপরাহ্ন | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ১৫, ২০২০ রাজশাহী
Darshan

বগুড়া প্রতিনিধিঃ বগুড়ার ধুনটে তাফসীরুল কোরআন মাহফিলে আসা সাত বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগ উঠেছে। সোমবার রাতে মাহফিলের অদূরে বাঁশঝাড়ের ভেতর থেকে তার বিবস্ত্র মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়।

নিহত ওই শিশুর নাম তাবাচ্ছুম খাতুন। সে উপজেলার চৌকিবাড়ি ইউনিয়নের নসরতপুর গ্রামের বেলাল হোসেন খোকনের মেয়ে। সে স্থানীয় পাঁচথুপি-নসরতপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্রী ছিল।

শিশুটির মৃতদেহ উদ্ধার করে ১৫ ডিসেম্বর মঙ্গলবার ময়নাতদন্তের জন্য বগুড়া শহিদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, নিহত তাবাচ্ছুমের মা-বাবা মেয়েটিকে গ্রামের বাড়িতে দাদা-দাদির কাছে রেখে ঢাকার একটি পোশাক কারখানায় চাকরি করেন। সোমবার রাতে দাদা-দাদির সাথে নসরতপুর জান্নাতুল ফেরদৌস কবরস্থানের পাশে তাফসীরুল কোরআন মাহফিলে যায় তাবাচ্ছুম।

রাত ১০টার দিকে দাদা-দাদিকে চিপস কেনার কথা বলে বাইরে গিয়ে নিখোঁজ হয় তাবাচ্ছুম। পরে খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে মাহফিলের অদূরে বাঁশঝাড়ের ভেতর বিবস্ত্র অবস্থায় শিশুটির মৃতদেহ দেখতে পায় এলাকার লোকজন। পরে থানায় খবর দেওয়া হলে পুলিশ এসে তাবাচ্ছুমের মৃতদেহ উদ্ধার করে।

স্থানীয়দের ধারণা, ধর্ষণের পর শিশুটিকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে।

ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কৃপা সিন্ধু বালা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, শিশু হত্যার ঘটনাটি গুরুত্বের সাথে খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ঘটনার রহস্য উদঘাটন করে আসামিদের অচিরেই গ্রেপ্তার করা হবে।