‘দেশে ভাস্কর্য আছে, থাকবে এবং আরও স্থাপন হবে’- প্রতিমন্ত্রী ইন্দিরা

indira

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা বলেছেন, দেশে ভাস্কর্য আছে, থাকবে এবং আরও স্থাপন করা হবে।

বুধবার ঢাকায় বাংলাদেশ শিশু একাডেমি আয়োজিত ‘জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধারণ ও ডিজিটাল প্রযুক্তির সর্বোত্তম ব্যবহারের মাধ্যমে জাতীয় সমৃদ্ধ অর্জন’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘জিয়াউর রহমান অবৈধভাবে ক্ষমতায় এসে দেশে সাম্প্রদায়িকতার বিষবৃক্ষ রোপণ করেছিলেন। আজ তারই উত্তরসূরীরা স্বাধীনতার ৫০ বছরে এসেও ভাস্কর্যের বিরুদ্ধে কথা বলছে। ভাস্কর্যবিরোধীরা অসাম্প্রদায়িকতা, স্বাধীনতার মূল্যবোধ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার ওপর আঘাত হেনেছে।’

নতুন প্রজন্ম ও নারীদের মৌলবাদ এবং সাম্প্রদায়িক শক্তির বিরুদ্ধে রুখে দাড়াঁনোর আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আজ যারা ভাস্কর্যের বিরুদ্ধে কথা বলে, ভাস্কর্য ভেঙে ফেলে তাদের কালো হাত ভেঙে দাও, গুঁড়িয়ে দাও। তাদের আস্তানা ভেঙে দিয়ে বাংলাদেশ থেকে তাদের বিতাড়িত করে দাও। ত্রিশ লাখ শহীদের রক্তেভেজা এই মাটিতে মৌলবাদীদের জায়গা হবে না। তাদের জায়গা হবে ওই পাকিস্তানে।’

বাংলাদেশ শিশু একাডেমির চেয়ারম্যান লাকী ইনামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব কাজী রওশন আক্তার। স্বাগত বক্তব্য রাখেন শিশু একাডেমির মহাপরিচালক জ্যোতি লাল কুরী।

প্রতিমন্ত্রী ইন্দিরা আরও বলেন, ‘বাংলাদেশ আর তলাবিহীন ঝুড়ি নেই। এখন বাংলাদেশের ঝুড়ি খাদ্যে পরিপূর্ণ। এখন কিন্তু কেউ আর খালি গায়ে, খালি পায়ে, খালি পেটে থাকে না। মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার স্বাধীনতার সুফল মানুষের ঘরে পৌঁছে দিচ্ছে।’

শিশুদের উদ্দেশে প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও বিজয় এক দিনে আসেনি। বঙ্গবন্ধু জাতিকে স্বাধীনতা অর্জনের দিকে চালিত করেন। সুদীর্ঘ নয় মাস যুদ্ধের পর ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর বিজয় অর্জিত হয়।

আলোচনা সভায় মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক পারভীন আকতার, অতিরিক্ত সচিব ফরিদা পারভীন ও ড. মহিউদ্দীন আহমেদসহ বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

◷ ৭:১৩ অপরাহ্ন ৷ বুধবার, ডিসেম্বর ১৬, ২০২০ ঢাকা