যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় দৈনিক সংক্রমণ-মৃত্যুতে নতুন রেকর্ড

◷ ১১:৪৯ পূর্বাহ্ন ৷ বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১৭, ২০২০ আন্তর্জাতিক
corona

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ যুক্তরাষ্ট্রে ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ। গত একদিনে প্রাণহানিতে অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে দেশটিতে। এতে করে মৃতের সংখ্যা ৩ লাখ ১৪ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। নতুন করে করোনার শিকার হয়েছেন প্রায় আড়াই লাখ মার্কিনি।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় ২ লাখ ৪৬ হাজার ৯৯৬ জন মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এতে করে সংক্রমিতের সংখ্যা বেড়ে ১ কোটি ৭২ লাখ ৯২ হাজার ৬১৮ জনে দাঁড়িয়েছে। নতুন করে প্রাণ হারিয়েছেন ৩ হাজার ৪৮৬ জন। এ নিয়ে প্রাণহানি বেড়ে ৩ লাখ ১৪ হাজার ৫৭৭ জনে ঠেকেছে।

অপরদিকে, সংক্রমণের তুলনায় কম হলেও গত ২৪ ঘণ্টায় করোনামুক্ত হয়েছেন ১ লাখ ৬২ হাজার ভুক্তভোগী। এতে করে সুস্থতার সংখ্যা ১ কোটি ১ লাখ ৭০ হাজার ৭৩৫ জনে পৌঁছেছে।

চলতি বছরের ২১ জানুয়ারি শিকাগোর এক বাসিন্দার মধ্যে প্রথম করোনার সংক্রমণ শনাক্ত হয়। এরপর থেকে ক্রমান্বয়ে ভয়ানক হতে থাকে পরিস্থিতি।

যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের ধারণা ইতোমধ্যে তাদের দেশের অন্তত ২০ মিলিয়ন (দুই কোটি) মানুষ করোনার শিকার হয়েছেন। দ্য সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল (সিডিসি) বলছে, ‘প্রকৃত তথ্য হলো, প্রকাশিত সংখ্যার অন্তত ১০ গুণ বেশি মানুষ করোনার ভয়াবহতার শিকার।’

এরই মধ্যে সেখানে শুরু হয়েছে করোনা ভাইরাসের টিকার জরুরি ব্যবহার। এই সপ্তাহ শেষ হয়ে যাওয়ার আগেই ফাইজার বায়োএনটেকের আবিষ্কার করা টিকা ২৯ লাখ মানুষকে দেয়া হতে পারে।

এর আগে ইউএস সেন্টারস ফর ডিজিজ কন্ট্রোল এন্ড প্রিভেনশনের (সিডিসি) পরিচালক ড. রবার্ট রেডফিল্ড সতর্ক করেছেন এই বলে যে, আগামী বছর টিকা পর্যাপ্ত আকারে পাওয়া যাওয়ার আগেই দেশের স্বাস্থ্যখাত বড় ধাক্কা খাবে। ধসে পড়তে পারে সিস্টেম।

তিনি আরো বলেছেন, এর আগে যে সতর্কতা দেয়া হয়েছিল, এরই মধ্যে সর্বশেষ আক্রান্তের সংখ্যা তার চেয়েও ভয়াবহ বলে প্রতীয়মান হচ্ছে। এ অবস্থায় আক্রান্তের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে। হাসপাতালে রোগীর ভিড় আরো বাড়তে পারে। বাড়তে পারে মৃতের সংখ্যা।

এ মাসের শুরুতে ইউনিভার্সিটি অব ওয়াশিংটনের প্রভাবশালী ইনস্টিটিউট ফর হেলথ মেট্রিকস এন্ড ইভ্যালুয়েশন পূর্বাভাস দিয়েছিল যে, সামাজিক দূরত্ব রক্ষা না করলে এবং মুখে মাস্ক না পরলে আগামী ১লা মার্চের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে মৃতের সংখ্যা দাঁড়াতে পারে প্রায় সাড়ে চার লাখ।