সংবাদ শিরোনাম

কক্সবাজারে ইয়াবা সম্রাটের সহযোগীর বাড়ি থেকে ১ লাখ ২০ হাজার ইয়াবা উদ্ধারসিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদ সস্ত্রীক করোনায় আক্রান্তরোহিঙ্গা শিশু অপহরণের পর হত্যার ঘটনায় নারীসহ দু’জন গ্রেপ্তারবেলকুচিতে দূর্বৃত্তদের আগুনে পুড়ে গেল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান !জামালপুরে মাদ্রাসা ছাত্রীকে রাতভর ধর্ষণ, গ্রেফতার মাদ্রাসার শিক্ষক‘করোনাকালের নারী নেতৃত্ব: গড়বে নতুন সমতার বিশ্ব’বগুড়ায় শিক্ষা প্রনোদনা পেতে প্রত্যয়নের নামে টাকা নেয়ার অভিযোগজামালপুরে ধর্ষণ মামলায় ধর্ষকের যাবজ্জীবনপাবনায় অবৈধ অস্ত্র তৈরির কারখানায় অভিযান, চারটি আগ্নেয়াস্ত্রসহ গ্রেফতার-২উপজেলা আ.লীগের সভাপতিকে ‘পেটালেন’ কাদের মির্জা!

  • আজ ২৪শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

৫৫ বছর পর চালু হল চিলাহাটি-হলদিবাড়ি রেলরুট

৫:০০ অপরাহ্ন | বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১৭, ২০২০ জাতীয়
NIlfamari news

নাজমুস সাকিব মুন, চিলাহাটি (নীলফামারী) থেকে ফিরেঃ দীর্ঘ ৫৫ বছর পর আবারো দেশের উত্তরবঙ্গের সাথে রেল যোগাযোগ চালু হল ভারতের।

বৃহস্পতিবার ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী নতুন রেল রুটটি উদ্বোধন করেন।

এইদিন সকাল সাড়ে ১১ টায় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বক্তব্যের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়। এরপর বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বক্তব্য শেষে বেলা ১১ টা ৪৮ মিনিটে দুই প্রধানমন্ত্রী যৌথভাবে রেল রুটটি উদ্বোধন ঘোষণা করেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন পতাকা উড়িয়ে ট্রেন চলাচল উদ্বোধন করেন। এই সময় একটি মালবাহী ট্রেন ভারতের হলদিবাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দেয়।

এ প্রকল্পের ব্যয় হয়েছে ৮০ কোটি ১৬ লাখ ৯৪ হাজার টাকা। প্রকল্পের বিদ্যমান চুক্তির আওতায় ৬ দশমিম ৭২৪ কিলোমিটার নতুন রেলপথ নির্মাণ (মেইন লাইন) ও ২ দশমিক ৩৬ কিলোমিটার লুপলাইন নির্মাণ করা হয়েছে। এছাড়া প্রকল্পের আওতায় রয়েছে সাতটি মাইনর ব্রিজ নির্মাণ, দুটি লেভেল ক্রসিং গেট, কালার লাইট সিগন্যালিংসহ টেলিকমিউনিকেশন সিস্টেম প্রবর্তন ও একটি স্টেশন নির্মাণ।

১৯৪৭ সালের ১৫ অগাস্ট পাক-ভারত বিভক্তের পরও এ পথে রেল চলাচল চালু ছিল। সে সময়ে এ পথে দুই দেশের বিভিন্ন প্রান্তে চলাচল করত যাত্রী ও মালবাহী ট্রেন। ১৯৬৫ সালে পাক-ভারত যুদ্ধের পর বন্ধ হয় দুই দেশের মধ্যে রেল চলাচল।

রেলপথ মন্ত্রণালয় জানায়, রেলপথটি চালু হলে বাংলাদেশের মোংলা বন্দর এবং উত্তর ও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সাথে ভারতের উত্তর-পূর্ব অংশ, নেপাল এবং ভুটানের মধ্যে বাণিজ্যিক কার্যক্রম জোরদার হবে।

এই রেলপথ চালু হলে বাংলাদেশি পর্যটকরা দার্জিলিংসহ উত্তর-পূর্ব ভারতে দ্রুত ও সহজে ভ্রমণ করতে পারবেন বলে জানায় রেলপথ মন্ত্রণালয়।