• আজ ১২ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

‘বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য অবমাননার মূল পরিকল্পনা বিএনপির’- কাদের

kader

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য অবমাননার মূল পরিকল্পনাকারী হচ্ছে বিএনপি। কারণ দেশে মুক্তিযুদ্ধকে চ্যালেঞ্জ করা হলেও তারা প্রকাশ্যে কোনো কথা বলার সাহস দেখাতে পারেনি।

শনিবার (১৯ ডিসেম্বর) সকালে নওগাঁ জেলার মান্দা উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বর্তমানে দেশে নয়, বিএনপির রাজনীতিতেই ভয়াবহ দুর্দিন চলছে। তথাকথিত একদলীয় শাসনের অবসান ঘটাতে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার যে ডাক বিএনপি দিচ্ছে প্রকৃতপক্ষে তা উন্নয়ন ও স্বাধীনতাবিরোধী শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ করার অপচেষ্টা মাত্র।

সমালোচনায় ভয় পায় না জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, সরকার গঠনমূলক সমালোচনাকে স্বাগত জানায়। গণতন্ত্রের এগিয়ে যাওয়ার পথ আরও মজবুত করতে সরকার শক্তিশালী এবং দায়িত্বশীল বিরোধী দল চায়। কিন্তু রাজনীতিতে বিএনপির ভয়াবহ দুর্দিন চলছে। তাদের রাজনৈতিক মনস্তত্ব এখন দুর্দশাগ্রস্ত। এসময়, হাতের তালু দিয়ে আকাশ ঢাকার অপচেষ্টা না করে বাস্তবতা মেনে ও দেশের মানুষের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হতে বিএনপি নেতাদের পরামর্শ দেন ওবায়দুল কাদের।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, দেশের মানুষ ও অর্থনীতি করোনার নেতিবাচক প্রভাব মোকাবিলা করে ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করেছে। অর্জন করেছে ঈর্ষনীয় প্রবৃদ্ধি। গ্রাম হতে শহরের প্রতিটি সেক্টরে সরকারের উন্নয়ন দৃশ্যমান।

স্থানীয় সরকার নির্বাচনে দলের কোন বিদ্রোহী প্রার্থীকে মনোনয়ন দেওয়া হবে না বলে আবার স্মরণ করে দিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিদ্রোহীদের মনোনয়ন দিলে তারা প্রশ্রয় পেয়ে যাবে। দলে বিশৃঙ্খলা দেখা দিতে পারে, তাই এ বিষয়ে আওয়ামী লীগ অনেক কঠোর। তিনি বলেন, দল করতে হলে দলের শৃঙ্খলা মেনে চলতে হবে।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, মুজিব বর্ষের মধ্যেই সারা বাংলাদেশের পাড়ায় মহল্লায় শতভাগ বিদ্যুৎ পৌঁছে যাবে, গোটা বাংলাদেশ বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হবে।

মান্দা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব মোল্লা এমদাদুল হকের সভাপতিত্বে সম্মেলনের প্রথম অধিবেশনে বক্তব্য দেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি, মুহা. ইমাজ উদ্দিন প্রামাণিক এমপি, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন, শহিদুজ্জামান সরকার এমপি, আনোয়ার হোসেন হেলাল এমপি।

এছাড়াও ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে আরও বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. রোকেয়া সুলতানা, কার্যনির্বাহী সদস্য শাহাবুদ্দিন ফরাজী, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক এমপি আব্দুল মালেক, রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার, সাবেক এমপি শাহিন মনোয়ারা হক, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যক্ষ জহুরুল ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক অনুপ কুমার মহন্তসহ জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ।

◷ ৪:১৪ অপরাহ্ন ৷ শনিবার, ডিসেম্বর ১৯, ২০২০ জাতীয়