সংবাদ শিরোনাম

যতদিন বেঁচে আছি, আমার এলাকার একটি লোক না খেয়ে থাকবে না: জেএইচএম ডিএমডিটেকনাফে বিজিবির সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ২, সাড়ে ৩ লাখ ইয়াবা উদ্ধারশাহজাদপুরের খুকনী ইউনিয়ন আ.লীগের সম্মেলনে সভাপতি শাহজাহান, সম্পাদক আফাজহাজি সেলিমের আপিলের রায় পড়া শুরুফতুল্লায় গ্যাসের সিলিন্ডার থেকে আগুন, একই পরিবারের ৬ জন দগ্ধগাজীপুর পিরুজালী থেকে কিশোরের লাশ উদ্ধারদেশেই টিকা উৎপাদনের প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রীকক্সবাজারে ইয়াবা সম্রাটের সহযোগীর বাড়ি থেকে ১ লাখ ২০ হাজার ইয়াবা উদ্ধারসিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদ সস্ত্রীক করোনায় আক্রান্তরোহিঙ্গা শিশু অপহরণের পর হত্যার ঘটনায় নারীসহ দু’জন গ্রেপ্তার

  • আজ ২৪শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

‘ভাস্কর্য দেশের ইতিহাস ও ঐতিহ্যকে ধারণ করে’- ড. কামাল

৪:২৮ অপরাহ্ন | শনিবার, ডিসেম্বর ১৯, ২০২০ ঢাকা
kamal

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ ভাস্কর্য ইস্যুতে মুখ খুললেন ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ও গণফোরাম সভাপতি ড.কামাল হোসেন। তিনি বলেছেন, ‘ভাস্কর্য দেশের ইতিহাস ও ঐতিহ্যকে ধারণ করে।’

শনিবার (১৮ ডিসেম্বর) দুপুরে বেইলি রোডের নিজ বাসায় ডাকা সংবাদ সম্মেলনে তিনি দলের বর্তমান অবস্থা ও ভাস্কর্য ইস্যু নিয়ে কথা বলেন সাংবাদিকদের সঙ্গে। এই সংবাদ সম্মেলনে তার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন গণফোরামের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টু।

এ সময় গণফোরাম এক ও ঐক্যবদ্ধ আছে জানিয়ে ড. কামাল হোসেন বলেন, দলে কোনও সমস্যা নেই। সে রকম সমস্যা যদি থেকে থাকে, এখন তা নেই। সবাই আছি, থাকব। এগুলো নিয়ে চিন্তার কিছু নেই। কোনও কিছু হলে তুলে ধরা হবে।

ড. কামালের পক্ষে লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনান গণফোরামের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য মোস্তফা মোহসীন মন্টু। লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, গণফোরামের কাউন্সিল সামনে ঘোষণা দেয়া হবে। কাউন্সিলে পূর্ণ সিদ্ধান্ত হবে, কী কী সমস্যা আছে, সেগুলো চিহ্নিত করা হয়েছে। আর এসব তুলে ধরা হবে ৯ জানুয়ারির সংবাদ সম্মেলনে।

গণফোরামে নতুন নেতৃত্ব আসবে কি না-এমন প্রশ্নের জবাবে ড. কামাল বলেন, দলের একদম ওপর থেকে নিচ পর্যন্ত নতুন নেতৃত্ব বেরিয়ে আসুক, এটাই আশা। এবার নতুন নেতৃত্ব করতে হবে।

তিনি বলেন, জেলায় জেলায় গিয়ে মানুষকে সঙ্গে নিয়ে সমাবেশ করা হবে, কর্মী সমাবেশ হবে। যে ঘুষ–দুর্নীতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে, এগুলো জনগণকে নিয়ে অর্থপূর্ণভাবে আমাদের মোকাবিলা করতে হবে।

উল্লেখ্য গেল বছর গণফোরামের ৫ম জাতীয় কাউন্সিলের পর ঘোষিত কমিটিতে স্থান পাওয়া না পাওয়া নিয়ে বিরোধে জড়ায় দলের দুই অংশ। নতুন কমিটিতে সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টুকে বাদ দিয়ে সাধারণ সম্পাদক করা হয় একাদশ জাতীয় নির্বাচনের আগে দলে যোগ দেয়া ড. রেজা কিবরিয়াকে।

এক পর্যায়ে কেন্দ্রীয় কমিটির সভা আহ্বান নিয়ে পাল্টাপাল্টি অবস্থান নেয় মন্টু এবং রেজা গ্রুপ। এ নিয়ে ঘটে বহিষ্কার ও পাল্টা বহিষ্কারের ঘটনাও। এভাবেই গত এক বছর দ্বন্দ্ব আর বিবাদে কাটে গণফোরামের কার্যক্রম।