• আজ ৫ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

স্বামীর সাথে ঝগড়ার বিষয়ে মীমাংশার কথা বলে দলবেঁধে ধর্ষণ, গ্রেফতার-৩

◷ ১১:১৫ অপরাহ্ন ৷ শনিবার, ডিসেম্বর ১৯, ২০২০ ঢাকা
Gazipur news

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, সময়ের কণ্ঠস্বর: স্বামীর সাথে ঝগড়ার বিষয়ে মীমাংশার কথা বলে গাজীপুরের টঙ্গী দত্তপাড়া থেকে অপহরণের পর দলবেঁধে ধর্ষণ ও নগ্ন ভিডিও ধারণের অভিযোগে তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শনিবার (১৯ ডিসেম্বর) দত্তপাড়াসহ আশপাশের এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতাররা হলেন- সৈয়দ রায়হান হোসেন ওরফে সাদ্দাম (২৮), আব্দুর রহমান (৩২) ও জসিম (৩০)।

এর আগে ভুক্তভোগী নারী টঙ্গী পূর্ব থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন এবং পর্নোগ্রাফি আইনে মামলা করেন।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, ভুক্তভোগী গৃহবধূ ও তার স্বামী দত্তপাড়ার একটি বাসায় ভাড়া থাকেন। গত ১০ ডিসেম্বর  সাংসারিক বিষয়ে কথাকাটির  এক পর্যায়ে স্বামী মিলন ওই গৃহবধূকে তালাকের হুমকি দেন। বিষয়টি গৃহবধূ তার স্বামীর বন্ধু সৈয়দ রায়হান হোসেন ওরফে সাদ্দামকে জানালে পরদিন শুক্রবার (১১ ডিসেম্বর) দুপুরে এসে মীমাংশা করে দেবেন বলে জানান।

পরদিন দুপুর ২টার দিকে রায়হান ওই গৃহবধূকে ফোনে জানান, ঝগড়ার বিষয়টি মীমাংশা করার জন্য তিনি দত্তপাড়া রিয়া গার্মেন্টসের মোড়ে দাঁড়িয়ে আছেন। ফোন পেয়ে গৃহবধূ সেখানে যান। এ সময় তাকে একটি সিএনজিতে তুলে রাজধানীর ভাটারাস্থ নতুন বাজার রায়হানের বাসায় নিয়ে যান। সেখানে রায়হান এবং তার দুই বন্ধু আব্দুর রহমান ও জসিম তাকে পালাক্রমে ধর্ষণ করেন। এক পর্যায়ে আব্দুর রহমান তার মোবাইলে ওই নারীর নগ্ন ভিডিও ধারণ করেন।

ধর্ষণের বিষয়টি কাউকে জানালে তারা মোবাইলে ধারণকৃত নগ্ন ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দেন। পরে তাকে একটি সিএনজিতে উঠিয়ে টঙ্গীর দত্তপাড়ায় পাঠিয়ে দেন অভিযুক্তরা।

এ ঘটনায় গতকাল শুক্রবার (১৮ ডিসেম্বর) ধর্ষণের শিকার ওই নারী টঙ্গী পূর্ব থানায় মামলা করলে এই তিন জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এ সময় তাদের কাছে থাকা নগ্ন ভিডিও ধারণকৃত মোবাইলটিও উদ্ধার করা হয়।

এ ব্যাপারে টঙ্গী পূর্ব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ আমিনুল ইসলাম বলেন, অপহরণ ও দলবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে দায়েরকৃত মামলার তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।