আশুলিয়ায় যৌতুক না দেয়ায় স্ত্রীর সারা শরীর ব্লেডে রক্তাক্ত করল স্বামী

◷ ১০:৫২ অপরাহ্ন ৷ রবিবার, ডিসেম্বর ২০, ২০২০ আলোচিত
Ashulia

তুহিন আহামেদ, আশুলিয়া প্রতিনিধি : আশুলিয়ার কুটুরিয়ায় দাবিকৃত যৌতুকের টাকা না পেয়ে মারুফা আক্তার (২৫) এক গৃহবধুর সারা শরীর ব্লেড দিয়ে কেটে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে তার স্বামীর বিরুদ্ধে। প্রথমে ওই গৃহবধুকে উদ্ধার করে স্থানীয়রা প্রথমে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং পরে রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন।

রবিবার বিকেলে আশুলিয়া থানার ডিউটি অফিসার উপ-পরিদশ (এসআই) জসিম উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করেন। এরআগে বুধবার (১৬ ডিসেম্বর) রাতে আশুলিয়ার কুটুরিয়া ধলপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

আহত গৃহবধূ মারুফা সাভার উপজেলার ভাকুর্তা এলাকার গোলাম মোস্তফার মেয়ে এবং আশুলিয়ার কুটুরিয়া ধলপুর এলাকার শেখ সাদী আজাদের স্ত্রী। অভিযুক্ত শেখ সাদী ওই এলাকার আব্দুর রহমানের ছেলে।

ভুক্তভোগীর বাবা গোলাম মোস্তফা জানান, গত ছয় বছর আগে পারিবারিকভাবেই বিয়ে হয় তাদের। বিয়ের পর থেকেই মারুফার স্বামী শেখ সাদী আজাদ পাঁচ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে বিভিন্ন সময়ে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করত। এরই ধারাবাহিকতায় গেল বুধবার রাতেও বাবার বাড়ি থেকে টাকা এনে দিতে চাঁপ দেয়। কিন্তু মারুফা কোন টাকা এনে দিতে পারবে না বলে জানালে তাকে ব্লেড দিয়ে সারা শরীর কেটে হত্যার চেষ্টা করে।

একপর্যায়ে মারুফা অজ্ঞান হয়ে পড়লে তার স্বামী ঘরে তালা ঝুলিয়ে দিয়ে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা ওই গৃহবধূর গোঙ্গানীর শব্দ শুনে তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। পরে রবিবার দুপুরে তাকে রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ওই গৃহবধূর হাত পা সহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে ব্লেড দিয়ে নির্মমভাবে জখম করে।

আশুলিয়া থানার ডিউটি অফিসার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জসিম উদ্দিন জানান, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিষয়টি সম্পর্কে অবগত হয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশের একটি টিম পাঠানো হয়েছে। এছাড়া ওই নারী সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে এখন ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন বলে জানতে পেরেছি বলেও জানান তিনি।