সংবাদ শিরোনাম

শাহজাদপুরে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কর্মকর্তাদের অর্থায়নে পাকা ঘর পাচ্ছে প্রতিবন্ধী দম্পতিবাংলাদেশে পরীক্ষা চালানোর জন্য ২০ লাখ টিকা দিয়েছে ভারত: রিজভীফরিদপুরের ভাঙ্গায় ট্রাক-মোটরসাইকেল মুখোমুখি সংঘর্ষ: ২ স্কুলছাত্র নিহতযশোর সীমান্তে ১২ লাখ টাকার ফেনসিডিলসহ মাদক ব্যবসায়ী আটকমধ্য প্রাচ্যের সবজি স্কোয়াশ চাষ হচ্ছে এখন নওগাঁর মাটিতেএসএসসির সংক্ষিপ্ত সিলেবাস প্রকাশচসিক নির্বাচনে সহিংসতার শঙ্কা ও উদ্বেগের যথেষ্ট কারণ রয়েছে: মাহবুব তালুকদারহিলিতে সড়ক দুর্ঘটনায় চাচা-ভাতিজা নিহতকোটালীপাড়ায় রাস্তা নির্মাণে বাঁধা, এলাকাবাসীর ক্ষোভসীমান্তে চীন ও ভারতের সেনাদের মধ্যে ‘ফের সংঘর্ষ’

  • আজ ১১ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ভাস্কর্য ভাঙচুর: যুবলীগ নেতাসহ ৩ আসামি রিমান্ডে

◷ ২:২০ অপরাহ্ন ৷ সোমবার, ডিসেম্বর ২১, ২০২০ আলোচিত বাংলাদেশ
kushtia-remand

সময়ের কণ্ঠস্বর, কুষ্টিয়া- কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে বিপ্লবী বাঘা যতীনের ভাস্কর্য ভাঙচুরের মামলায় যুবলীগ নেতাসহ তিনজনকে রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ। আজ সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে কুষ্টিয়ার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সেলিনা খাতুন তিন আসামির প্রত্যেকের তিন দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে সকালে রিমান্ড শুনানির জন্য তিন আসামিকে আদালতে নেওয়া হয়। তিন দিনের রিমান্ডের আবেদন মঞ্জুর করার পর কঠোর নিরাপত্তায় আসামিদের জেলা কারাগারে নেওয়া হয়

এ ঘটনার পেছনে কোনো জঙ্গি বা রাজনৈতিক গোষ্ঠীর মদদ এবং অন্য কেউ জড়িত আছে কি না, সে বিষয়টি খতিয়ে দেখতে গত শনিবার বিকেলে একই আদালতে হাজির করে আসামিদের প্রত্যেকের সাত দিন করে রিমান্ডের আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি-তদন্ত) রাকিবুল হাসান।

রিমান্ড মঞ্জুর হওয়ার পর রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট জয়দেব বিশ্বাস সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন। অন্যদিকে, আসামিপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট আবু সাঈদ বলেন, ‘দায়ের করা অভিযোগের সঙ্গে আসামিরা সম্পৃক্ত নন। এ মামলায় আসামিদের রিমান্ডের প্রয়োজন হয় না।’

এই তিন আসামি হলেন কুমারখালী উপজেলার কয়া ইউনিয়নের রায়ডাঙ্গার আনিচুর রহমান (৩২), মো. হৃদয় আহম্মেদ (২০) ও চাপড়া ইউনিয়নের ছেঁউড়িয়া মণ্ডলপাড়া এলাকার মো. সবুজ হোসেন (২০)। আনিচুর কয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি ছিলেন। তবে ঘটনার পর তাঁকে দল থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়।

কুষ্টিয়ায় আদালতের ইন্সপেক্টর রেজাউল ইসলাম বলেন, তিন আসামিকে সকালে আদালতে হাজির করলে রিমান্ড শুনানি শুরু করেন আদালত। বিচারক তাদের তিনদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার কয়া গ্রামে বিপ্লবী বাঘা যতীনের ভাস্কর্য ভাঙচুর করে দুর্বৃত্তরা। পুলিশ শুক্রবার সকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ঘটনার মূল পরিকল্পনাকারী কয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি আনিসুর রহমান আনিসকে গ্রেফতার করে।

পরে তার দেওয়া তথ্যমতে ঘটনায় জড়িত অপর দুই জন হৃদয় আহমেদ ও সবুজ হোসেনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এ ঘটনায় বাচ্চু নামের আরও একজন পলাতক রয়েছেন। তবে এই তিন জন ভাস্কর্য ভাঙচুরে সরাসরি জড়িত বলে জানিয়েছে কুষ্টিয়া পুলিশ। তাদের দাবি, কয়া মহাবিদ্যালয়ের বর্তমান কমিটিকে ফাঁসাতেই ভাস্কর্যটি ভাঙচুর করে তারা।