কাপাসিয়ায় প্রবাসীর স্ত্রীকে দলবেধে ধর্ষণ মামলার মূল হোতা গ্রেফতার

◷ ৯:৪০ অপরাহ্ন ৷ মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ২২, ২০২০ ঢাকা
Gazipur News

আনিসুল ইসলাম, কাপাসিয়া (গাজীপুর) প্রতিনিধি:  গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলার তরগাঁও এলাকায় প্রবাসীর স্ত্রীকে ডেকে নিয়ে দলবদ্ধ ধর্ষণের মূল হোতা সাখাওয়াত হোসেন (২৮) কে ঘটনার ৫ দিনের মাথায় গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে থানা পুলিশ।

সোমবার দিবাগত রাতে তাকে শ্রীপুর উপজেলার লতিফপুর এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। সে কাপাসিয়া উপজেলার কড়িহাতা ইউনিয়নের চর খামের গ্রামের আইন উদ্দিনের ছেলে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও কাপাসিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো: আফজাল হোসেন জানান, ঘটনার পর ধেকে মুল হোতা সাখাওয়াত হোসেন পার্শ্বর্বর্তী শ্রীপুর উপজেলার লতিফপুর এলাকায় তার খালার বাড়ীতে আত্মগোপন করেছিল। তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় তার অবস্থান জেনে সোমবার দিবাগত রাত ২টার দিকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

তিনি আরো জানান, সাখাওয়াত হোসেন তার সাথে পরিচয়ের সূত্র ধরে প্রবাসীর স্ত্রীকে মোবাইল ফোন দিবে বলে ঘটনার দিন ১৭ ডিসেম্বর সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে উক্ত গৃহবধূকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়। পরে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে সাখাওয়াত ও তার অন্যান্য সহযোগী আসামিদের নিয়ে জোরপূর্বক এবং কৌশলে উক্ত গৃহবধূকে তরগাও এর নবীপুর নর্দারটেক নিয়ে যায়। সেখানে আসামিদের মধ্যে সাখাওয়াতসহ ৪ জন গৃহবধূকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে এবং অন্যরা এ কাজে সহায়তা করে।

পরে আসামিরা গৃহবধূকে আটকে রেখে তার মায়ের মোবাইল নাম্বারে ফোন করে জানায় আপনার মেয়েকে ফেরত নিতে হলে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দিতে হবে। অন্যথায় তাকে হত্যা করা হবে। এ খবর শুনার পর ভীত অবস্থায় গৃহবধূর মা কাপাসিয়া থানায় এসে ঘটনা জানায়। পরে কাপাসিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো: আলম চাঁদের তত্বাবধানে পুলিশ পরিদশর্ক (তদন্ত) মো: আফজাল হোসেন সংগীয় ফোর্সসহ উক্ত মোবাইল ফোনের সূত্র ধরে গৃহবধূকে উদ্ধার এবং উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৭ আসামিদের গ্রেফতার করেন। এসময় মুল হোতা সাখাওয়াত পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।

এ ঘটনায় গৃহবধূর মা বাদী হয়ে কাপাসিয়া থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন, চাঁদাবাজি ও চুরির অভিযোগে মামলা দায়ের করেন।

এ মামলায় ঘটনার দিন রাতে গ্রেফতারকৃতরা হলো, কাপাসিয়া উপজেলার তরগাঁও পূর্ব পাড়া গ্রামের মোঃ মোস্তফা বেপারীর ছেলে রোমান বেপারী (২০), তরগাঁও এলাকার মোঃ মহসিন বেপারীর ছেলে মোঃ জুবায়ের বেপারী (২০), একই এলাকার মফিজ সরদারের ছেলে মো: মোরসালিন সরদার (২১), তরগাঁও এলাকার এহসান বেপারীর ছেলে মোঃ সাহাবুল হোসেন সাকিব (২২), তরগাঁও বোয়ালের টেক এলাকার মৃত শফুর উদ্দিনের ছেলে মাসুম শেখ (২১), একই এলাকার শামসুল হক ভূঁইয়ার ছেলে রাকিব হোসেন (২০) ও এলাকার বাদল মোড়লের ছেলে মাহফুজুল (২০)।

মো: আফজাল হোসেন আরো জানান, প্রবাসীর স্ত্রী ও এক সন্তানের জননী নরসিংদী জেলার মনোহরদী এলাকায় শ্বশুর বাড়ীতে বসবাস করেন। আসামী সাখাওয়াত হোসেনের সাথে মোবাইল ফোনে তার কথাবার্তা হতো। গত ১৬ ডিসেম্বর উক্ত প্রবাসীর স্ত্রী শশুর বাড়ী হতে কাপাসিয়া উপজেলার তরগাঁও এলাকায় মায়ের বাড়িতে বেড়াতে আসে। পরে মোবাইল ফোন দিবে বলে সাখাওয়াত তাকে বাড়ী থেকে ডেকে নিয়ে ঘটনা ঘটায়।