সংবাদ শিরোনাম

টিকা সবাইকে দিয়ে নিই, তারপর আমি নেবো: প্রধানমন্ত্রীসুনামগঞ্জে সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী ২ মাসের অন্তঃসত্ত্বা, ১ জন আটকসংঘর্ষ, গোলাগুলি অতঃপর দুই লাশে শেষ হলো চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনরংপুরে ইটভাটায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান, ১৯ লাখ টাকা জরিমানানির্বাচন বর্জন করলেন ইসলামী আন্দোলনের মেয়র প্রার্থী জান্নাতুল ইসলামদেশের প্রথম করোনা টিকা নিলেন নার্স রুনুমুন্সিগঞ্জে শিশু ধর্ষণের দায়ে যুবকের যাবজ্জীবনদেশে করোনা টিকা কার্যক্রম উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রীনজিরবিহীন নির্বাচন, দিনের ভোট রাতে: ইসিতে বিএনপির অভিযোগমাদারীপু‌রে শাহেদ বেগ হত্যা মামলায় দুইজ‌নের মৃত্যুদণ্ড

  • আজ ১৩ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

রংপুরে প্রতিবন্ধীকে নির্যাতনের পর হত্যা: স্ত্রীসহ পুলিশ সদস্য গ্রেফতার

◷ ১০:০৬ অপরাহ্ন ৷ বুধবার, ডিসেম্বর ২৩, ২০২০ রংপুর
rangpur

সাইফুল ইসলাম মুকুল, রংপুর ব্যুরোঃ রংপুর নগরীর পার্কের মোড় কোর্ট পাড়া এলাকায় প্রতিবন্ধী অটো চালককে মিথ্যা চুরির অভিযোগ এনে অমানবিক নির্যাতন করে হত্যার প্রতিবাদে এলাকাবাসী সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে। নির্যাতনকারী পুলিশ কনস্টেবল ও তার স্ত্রীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, রংপুর নগরীর পার্কের মোড় কোর্টপাড়া এলাকায় বসবাসকারী রংপুর পুলিশ ট্রেনিং সেন্টারে কর্মরত পুলিশ কনস্টেবল হাসান আলীর একটি অটো ভাড়া নিয়ে চালাতো প্রতিবন্ধী নাজমুল ইসলাম। দুদিন আগে অটো চুরি হলে এ ঘটনায় পুলিশ কনস্টেবল হাসান প্রতিবন্ধী নাজমুলকে তার বাসায় ধরে এনে তার স্ত্রী সাথি বেগম সহ তাকে অমানবিক নির্যাতন করে।

নির্যাতনে নাজমুল মারা গেলে পুলিশ কনস্টেবল হাসান ও তার স্ত্রী সাথি বেগম নিহত প্রতিবন্ধী নাজমুলের লাশ গলায় ফাঁস লাগিয়ে ঘরের সিলিং এর মধ্যে ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যা করেছে প্রচার করে।

এদিকে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনা স্থলে লাশটি নামালে এলাকাবাসী দেখতে পায় নিহতের সব গুলো নখ থেতলানো শরীরের বিভিন্ন স্থানে অসংখ্য আঘাতের চিহ্ন। নিহত প্রতিবন্ধী নাজমুলকে নির্যাতন করে হত্যার অভিযোগে এলাকাবাসী পুলিশকে হত্যাকারী পুলিশ কনস্টেবল হাসান ও তার স্ত্রী সাথি বেগমকে গ্রেফতার করার দাবি জানিয়ে বিক্ষোভ শুরু করে।

খবর পেয়ে রংপুর মেট্রোপলিটৈান পুলিশের সহকারী পুলিশ কমিশনার আলতাফ হোসেনের নেতৃত্বে পুলিশের উর্ধতন কর্মকর্তারা সেখানে গেলে বিক্ষুব্ধ জনতা তাদের ঘেরাও করে দায়িদের গ্রেফতারের দাবিতে বিক্ষোভ করতে থাকে। পরে পুলিশ জনতার দাবির মুখে পুলিশ কনস্টেবল হাসান আলী ও তার স্ত্রী সাথি বেগমকে গ্রেফতার করে।

এদিকে এ ঘটনা জানাজানি হলে শত শত জনতা নগরীর পার্কের মোড় এলাকায় রংপুর কুড়িগ্রাম লালমনিরহাট মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করে। এ সময় বেশ কয়েকটি অটো সহ যানবাহন ভাংচুর করা হয়। বিক্ষুব্ধ জনতা টায়রার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করে। এ নিয়ে পুলিশের সাথে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও কয়েক দফা সংঘর্ষ হয়।

পুলিশ লাঠি চার্জ করে বিক্ষুব্ধ জনতাকে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। দু ঘন্টা পর সন্ধা ৬ টার দিকে বিপুল সংখ্যক পুলিশ ঘটনা স্থলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পরে নিহতের লাশ উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য নিয়ে যায়।

উপ সহকারী পুলিশ কমিশনার আলতাফ হোসেন জানান, প্রতিবন্ধী অটো চালককে নির্যাতন করে হত্যা করার অভিযোগে পুলিশ সদস্য হাসান ও তার স্ত্রী সাথি বেগমকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ঘটনা স্থল থেকে উদ্ধার করা হয়েছে নির্যাতনে ব্যাবহৃত হাতুড়ি ও একটি প্লাস।

তাজহাট থানার ওসি আখতারুজ্জামান জানান, এ ঘটনায় মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি চলছে।