ট্রাম্পের পরিণতি সাদ্দামের চেয়েও করুন হবে: ইরানের প্রেসিডেন্ট

১০:৩০ পূর্বাহ্ন | শুক্রবার, ডিসেম্বর ২৫, ২০২০ আন্তর্জাতিক
ruhani

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের পরিণতি ইরাকের সাবেক স্বৈরশাসক সাদ্দামের চেয়ে ভালো হবে না বলে মন্তব্য করেছেন ইরানের প্রেসিডেন্ট ড. হাসান রুহানি। বুধবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে এসব কথা বলেন তিনি।

হাসান রুহানি বলেন, ট্রাম্প এক জন ‘অত্যাচারী, চূড়ান্ত খামখেয়ালি, নীতিহীন, ‘সন্ত্রাসবাদী এবং হত্যাকারী’ প্রেসিডেন্ট।

ক্ষমতার চার বছরে ইরানের উপরে খড়্গহস্ত ছিলেন আমেরিকার বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। যাওয়ার আগেও সেই চড়া সুরেই ইরানকে হুশিয়ারি দেন তিনি। এতে বেজায় চটেছে ইরানও।

রুহানি ট্রাম্পকে স্মরণ করিয়ে দেন, ১৪ বছর আগে বাগদাদের কারাগারে যখন সাদ্দামকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছিল, তখন দেশটির মানুষ উল্লাস করেছিল। ট্রাম্পের ভাগ্যেও এ ধরণের দুর্ভোগ অপেক্ষা করছে।

প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে ইরানের সম্পর্ক জোরদারের প্রতি ইঙ্গিত করে প্রেসিডেন্ট আরও বলেন, আজারবাইজানের ভূখণ্ড মুক্ত হওয়ার বিষয়টি ইরানের সঙ্গে সম্পর্কের ওপর ইতিবাচক প্রভাব ফেলেছে। ইরান ও আজারবাইজান ‘খোদাঅফারিন’ বাধের মাধ্যমে পানি সংরক্ষণ ও বিদ্যুৎ উৎপাদনের বিষয়ে ঐক্যমত্যে পৌঁছেছে।

ইরান ও আফগানিস্তানের মধ্যে ট্রেন চলাচল শুরু হওয়ায় সন্তোষ প্রকাশ করে তিনি বলেন, দুই দেশের মধ্যে খাফ-হেরাত রেল লাইন মাজার শরীফকে যুক্ত করার পাশাপাশি তা মধ্য এশিয়া ও উজবেকিস্তানকে সংযুক্ত করবে বলে আশা করছি।

সম্প্রতি ইরাকের রাজধানী বাগদাদে আমেরিকার দূতাবাসে রকেট হামলার ঘটনায় ইরানকেই দায়ী করেছেন ট্রাম্প।

ওই হামলার পিছনে ইরানের মদতপুষ্ট একটি জঙ্গি দলের হাত রয়েছে বলে দাবি করেছেন বাগদাদের মার্কিন সেনারাও। হামলায় প্রাণহানির ঘটনা না ঘটলেও, বড়সড় ক্ষতি হয়েছে মার্কিন দূতাবাস ভবনের।

জবাবে বৃহস্পতিবার ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রী মোহাম্মদ জাভেদ জারিফ বলেছেন, করোনা-সহ নানা বিষয়ে দেশের মাটিতে ব্যর্থতা ঢাকতে বিদেশের দিকে নজর ঘোরানোর চেষ্টা করছেন ট্রাম্প।