• আজ ১৭ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

পেঁয়াজ রপ্তানির অনুমতি দিয়েছে ভারত

৮:২২ অপরাহ্ন | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ২৯, ২০২০ ফিচার
পেঁয়াজ

মোঃ আব্দুল আজিজ, হিলি প্রতিনিধি- ভারত সরকার ৩ মাস ১৫ দিন পর আবারও বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানির অনুমতি দিয়েছে। অভ্যন্তরীণ বাজারে সংকট ও মূল্য বৃদ্ধির অজুহাত দেখিয়ে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ করে দেয় ভারত সরকার। তবে কোনও মূল্য নির্ধারণ ছাড়াই আগামী ১ জানুয়ারি থেকে পেঁয়াজ রফতানির ঘোষণা দিয়েছে তারা।

সোমবার (২৮ ডিসেম্বর) রাতে ভারতের বৈদেশিক বাণিজ্য বিভাগের মহাপরিচালক অমিত ইয়াদব স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাাপনের মাধ্যমে বিষয়টি জানানো হয়। রাতেই এ প্রজ্ঞাপনের কপি দিয়ে পেঁয়াজ রপ্তানির বিষয়টি ভারতীয় রপ্তানিকারকরা বাংলাদেশি আমদানিকারকদের জানিয়েছেন।

হিলি স্থলবন্দরের আমদানিকারকরা জানান, পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ ঘোষণার ৩ মাস ১৫ দিন পর আবার ভারত সরকার পেঁয়াজ রপ্তানির অনুমতি দিয়েছে বলে গত সোমবার রাতে একটি পত্রের কপি দিয়ে ভারতীয় রপ্তানিকারকরা আমাদের জানিয়েছেন। একইসঙ্গে জানানো হয়েছে, পেঁয়াজ রফতানির ক্ষেত্রে কোনও মূল্য নির্ধারণ করা হয়নি। ১ জানুয়ারি থেকে এই পেঁয়াজ রফতানি করা হবে বলে তারা জানিয়েছেন। এখন পেঁয়াজ আমদানির জন্য এলসি খোলার প্রস্তুতি নিয়েছি। আগামীকাল আইপি খোলাসহ এ সংক্রান্ত সব প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করে ব্যাংকগুলো থেকে এলসি খোলা হবে।

উল্লেখ্য যে, অভ্যন্তরীণ বাজারে সংকট ও মূল্য বৃদ্ধির অজুহাত দেখিয়ে চলতি বছরের গত ১৪ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয় ভারত। এতে বাংলাদেশে প্রবেশের অপেক্ষায় ভারতে আটকা পড়ে ২শ ৫০ পেঁয়াজবাহী ট্রাক। আরও আটকা পড়ে ১০ হাজার টনের মতো এলসি করা পেঁয়াজ। এর পাঁচ দিন পর ১৯ সেপ্টেম্বর অনুমতি সাপেক্ষে টেন্ডারকৃত ১১টি ট্রাকে ২শ ৪৬ টন পেঁয়াজ রপ্তানি করে তারা, যার অধিকাংশ পঁচে নষ্ট হওয়ায় ব্যাপকভাবে আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়েন বাংলাদেশের আমদানিকারকরা।