ব্যারিস্টার মওদুদের সর্বশেষ শারীরিক অবস্থা জানালেন ফখরুল

◷ ৪:৫৮ অপরাহ্ন ৷ বুধবার, জানুয়ারী ৬, ২০২১ ঢাকা
mouud

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে দলেটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আমি উনাকে দেখে এসেছি। উনি (মওদুদ আহমদ) আগের চেয়ে ভালো আছেন। উনি আমার সঙ্গে কথা বলেছেন। উনি দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন। উনি বলেছেন ভালো বোধ করছেন।

তিনি বলেন, আমি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক অধ্যাপক শাহাবুদ্দিন তালুকদার সাহেবের সঙ্গে কথা বলেছি। আগামীকাল তার হৃদযন্ত্রে স্থায়ী পেস মেকার বসানো হবে। এখন একটা অস্থায়ী পেস মেকার আছে।

বুধবার (৬ জানুয়ারি) দুপুরে বসুন্ধরায় এভার কেয়ার হাসপাতালে গিয়ে অসুস্থ মওদুদ আহমদকে দেখে আসার পর সাংবাদিকদের এ কথা জানান তিনি। বিএনপি মহাসচিবের সঙ্গে দলের ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেনও ছিলেন।

ডা. জাহিদ বলেন, মওদুদ আহমদের অবস্থা আগের চেয়ে অনেকটা ভালো। তিনি কথা বলছেন, গত পরশু অস্থায়ী প্রেস মেকার বসানো হয়েছে, আগামীকাল স্থায়ী প্রেস মেকার বসানোর কথা রয়েছে। সবার কাছে মওদুদ আহমদ দোয়া চেয়েছেন। বেগম জিয়া তার খোঁজ খবর রাখছেন। তার অসুস্থতায় বেগম জিয়া কিছুটা আফসোস করেছেন।

গত ৩০ ডিসেম্বর রক্তে হিমোগ্লোবিনের পরিমান হ্রাস পেলে মওদুদ আহমদকে নগরীর এভার কেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে তার রক্তে হিমোগ্লোবিনের পরিমান বৃদ্ধি পেয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

তিনি হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক শাহাবুদ্দিন তালুদারের তত্ত্বাবধায়নে চিকিৎসাধীন আছেন। গতকাল তার নেতৃত্বে ৬ সদস্যের একটি মেডিকেল বোর্ড মওদুদ আহমদের শারীরিক অবস্থা পর্যালোচনা করে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে এবং দ্রুত হৃদযন্ত্রের একটি স্থায়ী পেস মেকার বসানোর সিদ্ধান্ত হয়।

১৯৭৮ সালে জিয়াউর রহমান বিএনপির প্রতিষ্ঠা করলে মওদুদ আহমদও প্রতিষ্ঠাতাদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন। পরে সামরিক শাসক এইচ এম এরশাদ ক্ষমতা দখল করার পর তিনি জাতীয় পার্টিতে যোগ দেন।

এইচ এম এরশাদের সরকারের প্রধানমন্ত্রী, উপরাষ্ট্রপতির দায়িত্ব পালন করা ব্যারিস্টার মওদুদ পরে আবার বিএনপিতে যোগ দিয়ে খালেদা জিয়ার সরকারের আইনমন্ত্রী ছিলেন। মওদুদ আহমদের স্ত্রী হাসনা পল্লী কবি জসীম উদ্দীনের মেয়ে।