সংবাদ প্রকাশের পর আর্থিক সহায়তাসহ টিন পেলেন সেই কদবানু

◷ ৯:২৩ অপরাহ্ন ৷ বুধবার, জানুয়ারী ৬, ২০২১ রংপুর
kodbanu

মোঃ ইউনুস আলী, লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃ কষ্টেভরা মোর জীবন, চাইলে কি তা দূর হয়” ‘বাধের রাস্তায় থাকতে জীবনটায় শেষ হয়ে গেল, তাও মোক একনা কাও ঘর দেয় নাই বাবা’ এমন সংবাদ প্রকাশিত হবার পর আর্থিক সহায়তাসহ ঘরের টিন পেলেন লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার সেই কদবানু। এরপর পাবেন সরকারি পাকা ঘর।

বুধবার (৬ জানুয়ারী ) বিকেলে দুর্যোগ ও ত্রান মন্ত্রনালয়ের ২ বান্ডিল ডেউ টিন, ৬ হাজার টাকার একটি চেক, শুকনো খাবার এবং শীতবস্ত্র কদবানুর বাড়ীতে পৌঁছে দিলেন কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার রবিউল হাসান।

৭৫ বছর অসহায় কদবানুর বাড়ি ঐ উপজেলার তুষভান্ডার ইউনিয়নের কাশিরাম মুন্সির বাজার এলাকায়।

কদবানুকে নিয়ে গত ৫ জানুয়ারী বিভিন্ন প্রিন্ট ও অনলাইন নিউজ পোর্টালে “”বাবা- মোক একনা কাও ঘর দেয় না, কদবানুর কষ্ট” শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। সেটি নজরে আসে সমাজকল্যাণ মন্ত্রী আলহাজ্ব নুরুজ্জামান আহমেদ এবং উপজেলা নির্বাহী অফিসার রবিউল হাসানের।

প্রতিবেদনটি নজরে আসার সঙ্গে সঙ্গে সমাজকল্যাণ মন্ত্রী ও জেলা প্রশাসক কদবানুকে সহায়তা দেওয়ার নির্দেশ মোতাবেক উপজেলা নির্বাহী অফিসার রবিউল হাসান কদবানু’র বাড়ীতে ডেউটিন, চেক, শুকনো খাবার ও শীতবস্ত্র পৌঁছে দেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) জাহাঙ্গীর হোসেন, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ফেরদৌস আহমেদ, ফ্যামিলি প্লানিং ইন্সপেক্টর মোঃ মুর্শিদ হক।

সহায়তা পেয়ে আনন্দে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েছেন কদবানু। অশ্রুশিক্ত হয়ে বলেন , মন্ত্রী স্যারের সহায়তা পানুং। ইউএন স্যার সরকারি ঘর দিতে চাইলো। সাংবাদিক বাবারা দূতের মতো এসে মোর ভাঙা ঘরের ছবি দিয়ে খবর ছাপায়। মোর খবর ছেপে দেওয়ায় টিন ও টাকা পানুং সরকারি ঘরও পাইম। ঘর পাওয়ার খবর শুনে মোর পরাণটা জুড়িয়ে গেল! আল্লাহ মন্ত্রী স্যার, ইউএনও স্যার, এসিল্যান্ড স্যার এবং পিআইও স্যারের সবসময় মঙ্গল করুক।

এ বিষয় উপজেলা নির্বাহী অফিসার রবিউল হাসান বলেন, খ-তালিকায় সরকারী ঘর বরাদ্ধ আসলে কদবানু কে একটি ঘর দেয়া হবে।