ওয়াশিংটন ডিসিতে সংঘর্ষ ও হিংসার ঘটনায় আমি অত্যন্ত আহত: মোদী

◷ ১২:৩৮ অপরাহ্ন ৷ বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী ৭, ২০২১ আন্তর্জাতিক
modi

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ মার্কিন পার্লামেন্ট ক্যাপিটল হিলে নজিরবিহীন এক হামলা চালিয়েছে শত শত ট্রাম্প সমর্থক। এই হামলায় প্রথমেই পুলিশের গুলিতে এক নারী নিহত হন। পরে ‘মেডিকেল ইমার্জেন্সি’ পরিস্থিতি তৈরি হওয়ায় আহত আরও তিনজনের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

টুইটারে তিনি লিখেছেন, ‘ওয়াশিংটন ডিসিতে সংঘর্ষ ও হিংসার ঘটনায় আমি অত্যন্ত আহত। নিয়মমাফিক ও শান্তিপূর্ণ ক্ষমতা হস্তান্তরের প্রক্রিয়া যেন চলতে থাকে। একটি গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়াকে কখনই বেআইনি আন্দোলনের দ্বারা বেপথে চালিত হতে দেওয়া যায় না’।

পুলিশ জানিয়েছে, তারা আইনপ্রণেতাদের সেখান থেকে বের করে এনেছে। তবে ক্যাপিটল হিল থেকে ট্রাম্প সমর্থকদের বের করতে আরও সাড়ে ৩টার সময় সময় লাগে পুলিশের। এসময় ট্রাম্প সমর্থকরা ক্যাপিটল হিলের জানালায় ভাঙচুর করে।

তবে ট্রাম্প সমর্থকদের বের করে দেয়ার পর ‍বুধবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে ক্যাপিটল ভবন তাদের নিয়ন্ত্রণে এসেছে বলে জানায় পুলিশ। ওই হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় পার্লামেন্টের অধিবেশন স্থগিত হয়ে যায়। তবে রাত ৮টায় আবারও অধিবেশন শুরু হবে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত জো বাইডেনের জয়কে সার্টিফাই করতে বুধবার এই অধিবেশন চলছিল।

শুধু নরেন্দ্র মোদী নয়, অনেক রাষ্ট্রনায়কই এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন। যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন এ ঘটনাকে ‘লজ্জাজনক দৃশ্য’ বলে উল্লেখ করেছেন। সেই সঙ্গে ‘শান্তিপূর্ণ এবং সুশৃঙ্খলভাবে ক্ষমতা হস্তান্তরের’ আহ্বান জানান তিনি।

এ ঘটনাকে ‘গণতন্ত্রের ওপর আক্রমণ’ বলে উল্লেখ করেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। তিনি বলেন, সহিংসতা কখনই মানুষের ইচ্ছাকে ছাড়িয়ে নিতে সফল হয় না। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে গণতন্ত্র অবশ্যই বহাল থাকবে এবং তা হবে।

এদিকে ডোনাল্ড ট্রাম্প সমর্থকদের হামলার ঘটনায় নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, ‘এই বিক্ষোভ একটি বিদ্রোহের সমতুল্য এবং এখনই তার অবসান হওয়া উচিত। এই সময় আমাদের গণতন্ত্র এক নজিরবিহীন আক্রমণের মুখে।’

পার্লামেন্ট ভবনে ট্রাম্প সমর্থকদের তাণ্ডবের ঘটনায় জো বাইডেন আরও বলেন, ‘তাদের তৎপরতা আসলে রাষ্ট্রদ্রোহের শামিল।’

তিনি বলেন, ‘আমি ডোনাল্ড ট্রাম্পকে বলবো, শপথ গ্রহণের জন্য আপনি এখন জাতীয় টেলিভিশনে যান, সংবিধান রক্ষা করুন এবং এই অবরোধের অবসান দাবি করুন।’