এ হামলা আমেরিকানদের জন্য লজ্জাজনক: ট্রাম্প

◷ ১০:৫০ পূর্বাহ্ন ৷ শুক্রবার, জানুয়ারী ৮, ২০২১ আন্তর্জাতিক
trump

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ মার্কিন ক্যাপিটল ভবনে সমর্থকদের হামলা, ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনাকে আমেরিকানদের জন্য লজ্জাজনক উল্লেখ করে নিজেই নিন্দা জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। বৃহস্পতিবার (৭ ডিসেম্বর) এক ভিডিও বার্তায় তিনি এ কথা বলেন।

ট্রাম্প বলেন, ‘মার্কিন ক্যাপিটল-এ নৃশংস হামলার ঘটনা আমেরিকানদের জন্য লজ্জাজনক। এই ধরনের অনাচার, আইনবিরোধী কর্মকাণ্ড এবং মারামারি দেখে খুবই বিরক্ত হয়েছি। ভবনটি সুরক্ষিত করতে ও অনুপ্রবেশকারীদের বহিষ্কারের জন্য আমি তখনই ন্যাশনাল গার্ড এবং ফেডারেল আইন প্রয়োগকারী সদস্যদের মোতায়েন করি।’

তিনি বলেন, ‘আমেরিকা সব সময় নিয়ম এবং আইনের মধ্যে দিয়ে চলে। অনুপ্রবেশকারীরা ক্যাপিটল হিলে তাণ্ডব চালিয়ে আমেরিকার গণতন্ত্রে আঘাত হেনেছে। ধ্বংসযজ্ঞ চালিয়ে কোন দিন নিজেদের দেশকে প্রেজেন্ট করা যায় না। যারা এই বর্বর ঘটনা সৃষ্টি করে আইন ভেঙেছে তাদের প্রত্যেককে বিচারের মুখোমুখি হতে হবে। আমরা সবেমাত্র একটি নির্বাচনের মধ্যে দিয়ে এসেছি। অনেকে হয়তো বা আবেগ ধরে রাখতে পারেনি। আমাদের নিজেদের শান্ত রাখতে হবে।’

ট্রাম্প আরো বলেন, ‘মার্কিন কংগ্রেসের ঘোষণা অনুযায়ী মার্কিন নতুন প্রশাসন আগামী ২০ জানুয়ারি শপথ নেবে। আর এই দিনটির জন্যই এখন অপেক্ষায় আছি।’ সবশেষ মার্কিনীদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, ‘প্রেসিডেন্ট হিসেবে আপনাদের সেবা দিতে পেরে আমি কৃতজ্ঞ। সবই সম্ভব হয়েছে আপনাদের অসাধারণ সমর্থনে।

নিন্দনীয় এ ঘটনায় জনপ্রিয়তায়ও ভাটা পড়েছে ট্রাম্পের। বিশ্লেষকরা বলছেন, ডোনাল্ড ট্রাম্প গত নির্বাচনে হারার পর ২০২৪ সালের নির্বাচনে আবারও প্রার্থী হওয়ার যে স্বপ্ন দেখছিলেন, বুধবারের ঘটনায় তা মিলিয়ে যেতে বসেছে।

হামলায় সমর্থন জানিয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতেও বেশ তোপের মুখে রয়েছেন ট্রাম্প। ঘটনার পর হামলাকারীদের ‘দেশপ্রেমিক’ উল্লেখ করে এক ভিডিও বার্তায় ট্রাম্প বলেন, ‘তোমাদের ভালোবাসি।’ এর পরপরই ফেসবুক ও টুইটার তার অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেয়। আর ভিডিও সরিয়ে নেয় ইউটিউব।

ফেসবুক ও টুইটার কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তার পোস্টের মাধ্যমে সহিংসতা উসকে দিচ্ছেন বলে অভিযোগ করছেন ব্যবহারকারীরা। এজন্য টুইটারে ট্রাম্পের অ্যাকাউন্ট ১২ ঘণ্টা এবং ফেসবুকে ২৪ ঘণ্টা বন্ধ থাকবে। তবে সবচেয়ে কঠোর বার্তা দিয়েছে ট্রাম্পের প্রিয় টুইটার। তারা জানিয়েছে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট বিতর্কিত টুইট বাদ না দিলে তার অ্যাকাউন্ট চিরতরে বন্ধ করে দেয়া হবে।