সংবাদ শিরোনাম
  • আজ ৬ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

দিহানের বাসার দারোয়ান আটক

◷ ২:৫৪ অপরাহ্ন ৷ সোমবার, জানুয়ারী ১১, ২০২১ আলোচিত বাংলাদেশ
didar daroyan

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- মাস্টারমাইন্ড স্কুলের ‘ও’ লেভেলের শিক্ষার্থী আনুশকা নূর আমিনকে ধর্ষণের পর হত্যার ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য কলাবাগানের বাসা থেকে দিহানদের বাড়ির দারোয়ান দুলালকে আটক করেছে পুলিশ। ঘটনার পর থেকে তিনি পলাতক ছিলেন।

সোমবার (১১ জানুয়ারি) দুপুরে তাকে আটক করা হয়।

ডিএমপির রমনা বিভাগের উপকমিশনার ডিসি মো. সাজ্জাদুর রহমান গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, ঘটনার বিষয়ে দারোয়ানকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য কলাবাগান থানা পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ৭ জানুয়ারি কলাবাগানে দিহান তার বাড়ি থেকে তার বন্ধু ও লেভেলের ওই ছাত্রীকে মডার্ন হাসপাতালে নিয়ে গিয়েছিলেন। তবে তার আগেই তার মৃত্যু ঘটে।

মেয়েটির ময়নাতদন্ত শেষে ঢাকা মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগের প্রধান ডা. সোহেল মাহমুদ বলেন, “তার শরীরের কোথাও আঘাতের চিহ্ন পাওয়া না গেলেও যৌনাঙ্গ ও পায়ুপথে ক্ষত চিহ্ন পাওয়া গেছে। বিকৃত যৌনাচারের কারণে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হওয়ায় তার মৃত্যু হয়েছে।”

দিহান দাবি করেছেন, তারা ‘পরস্পরের সম্মতিতে’ দৈহিক সম্পর্ক গড়েছিলেন।

তবে মেয়েটির পরিবার ধর্ষণ ও হত্যার অভিযোগ তুলে দিহানের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। দিহান ১৬৪ ধারায় দোষ স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দেওয়ার পর বর্তমানে কারাগারে রয়েছেন।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, গত বৃহস্পতিবার (৭ জানুয়ারি) সকালে আমার স্ত্রী ও আমি বের হয় হই। পরে আমার মেয়ে বেলা সাড়ে ১১টায় তার মাকে ফোন দিয়ে বলে সে কোচিংয়ের পেপার্স আনতে বাইরে যাচ্ছে। দুপুর ১টা ১৮ মিনিটে দিহান আমার স্ত্রীকে ফোন দিয়ে বলে আমার মেয়ে তার বাসায় গিয়েছিল।

সেখানে হঠাৎ অচেতন হয়ে পড়ায় তাকে রাজধানীর আনোয়ার খান মডার্ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতলের জরুরি বিভাগে ভর্তি করেছে। এ কথা শুনে আমার স্ত্রী দুপুর ১টা ৫২ মিনিটের দিকে হাসপাতালে পৌঁছায়। সেখানে গিয়ে কর্তব্যরত চিকিৎসকের কাছে জানতে পারেন আমাদের মেয়েকে ধর্ষণ করে মেরে ফেলা হয়েছে।