• আজ ৩রা মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

আবাদি জমি গিলে খাচ্ছে ভেকু: ক্ষতিগ্রস্থ কৃষি

◷ ৪:২৯ অপরাহ্ন ৷ মঙ্গলবার, জানুয়ারী ১২, ২০২১ ময়মনসিংহ
Jamalpur news

রকিব হাসান নয়ন, জামালপুর প্রতিনিধি  : প্রভাবশালী ব্যক্তিরা যখন অপকর্ম ও অবৈধ কাজে জড়িত থাকেন, তখন তাঁদের  প্রতিহত করা কঠিন হয়ে দাঁড়ায়। জামালপুর জেলার মেলান্দহ উপজেলার ঘোষেরপাড়া ইউনিয়নের পাঠানপাড়া এলাকায় স্থানীয় কৃষকদের ফসলি জমি থেকে খননযন্ত্র ( ভেকু মেশিন) দিয়ে মাটি ও বালু উত্তোলন করে বিক্রি করছেন সাবেক ইউপি সদস্য সিরাজুল ইসলাম।

পূর্ব ছবিলাপুর গ্রামের সাবেক ইউপি  সদস্য সিরাজুল ইসলাম সিরাজ  রাজনৈতিক ছত্রচ্ছায়ায় থেকে প্রভাবশালী কিছু ব্যক্তিমালিকানাধীন ফসলি জমি থেকে প্রায় তিন বছর ধরে খননযন্ত্র (ভেকু মেশিন) দিয়ে মাটি ও বালু উত্তোলন করে আসছে। প্রভাবশালী হওয়ায় খনন করার পাশের জমির মালিকেরা ভয়ে নিশ্চপ।

জানা গেছে, প্রশাসনের কোনো রকম অনুমতি ছাড়াই একটি  প্রভাবশালী চক্র ঝারকাটা নদীর পাশে আবাদি জমির মাটি গভীর করে এক্সেভেটর মেশিন দিয়ে কেটে নেওয়ায় বিপাকে পড়েছেন এলাকার কৃষকরা। এক্সেভেটর যন্ত্র (ভেকু মেশিন) দিয়ে মাটি উত্তোলন করায় পার্শ্ববর্তী আবাদি জমি বিলীন হয়ে যাওয়ার আশঙ্কায় দিন কাটাচ্ছেন বেশ কিছু চাষি পরিবার।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পার্শ্ববর্তী জমির চাষিরা জানান, যেভাবে মেশিন দিয়ে মাটি কেটে গভীর গর্ত করা হচ্ছে, তাতে করে তাদের একমাত্র অবলম্বন আবাদি জমি ধসে নদী হয়ে যাবে। চাষ উপযোগী জমি তাদের আর থাকবেনা। এতে করে সব হারিয়ে পথে বসতে হবে তাদের।

মাটি উত্তোলনকারীরা ব্যাপক প্রভাবশালী এবং ক্ষমতাধর হওয়ায় পার্শ্ববর্তী আবাদি জমির মালিকরা বারবার নিষেধ করলেও কোনো লাভ হচ্ছে না বলে অভিযোগ করেছেন চাষিরা। এ বিষয়ে সংশিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করছেন এলাকাবাসী।

এ নিয়ে সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ সিরাজুল ইসলামের সাথে কথা হলে তিনি জানান, আবাদি জমি থেকে মাটি কাটা বিষয়টি আমার জানা ছিলো না। সরাকারিভাবে তাদের কোনো অনুমোদন নাই। এবিষয়ে আমি দ্রুত পদক্ষেপ নিবো।