সংবাদ শিরোনাম

প্রেম করে বিয়ে, একদিন পর বাসর ঘরে মিলল কলেজ ছাত্রীর লাশপ্রথম দিনেই মুসলিম নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়াসহ ১৫ আদেশ বাইডেনেররাজশাহীতে সার্জেন্টের উপরে হামলাকারী বেলাল গ্রেফতার২০ বাংলাদেশি জেলেকে ধরে নিয়ে গেছে মিয়ানমার নৌবাহিনীউচ্চকক্ষ সিনেটেও জুসেপ্পের নিরঙ্কুশ বিজয়, রাজনৈতিক সংকটের অবসানচাঁদপুরের মতলব উত্তরে ১৪৪ ধারা জারিজমি সংক্রান্ত বিরোধে ভাইয়ের হাতে বোন খুন!টাঙ্গাইলে রাতের অন্ধকারে অতর্কিত হামলায় কলেজ ছাত্র নিহতফেনীর সোনাগাজী পৌর মেয়রের জমির শ্রেনী পরিবর্তন করে রাজস্ব ফাঁকি‘ভারতে যারাই ক্ষমতায় এসেছে, তারাই মুসলমানদেরকে শিক্ষা থেকে দূরে রেখেছে’

  • আজ ৭ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে চিরনিদ্রায় সাংবাদিক মিজানুর রহমান

◷ ৫:১৪ অপরাহ্ন ৷ মঙ্গলবার, জানুয়ারী ১২, ২০২১ ফিচার
mizanur

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- মিরপুরের শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে সিনিয়র সাংবাদিক প্রথম আলোর যুগ্ম সম্পাদক মিজানুর রহমান খানের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। তিন দফা জানাজা শেষে মঙ্গলবার বেলা সোয়া ২টার দিকে তার দাফন সম্পন্ন হয়।

এদিন দুপুর দেড়টার দিকে মিজানুর রহমানের মরদেহবাহী গাড়িটি শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে পৌঁছায়। সেখানে তার স্ত্রী, সন্তান, পরিবারের সদস্য, আত্মীয়-স্বজন ও প্রথম আলোর সহকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে মঙ্গলবার সকাল ১০টা ১০মিনিটে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি প্রাঙ্গণে মিজানুর রহমান খানের প্রথম নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে জানাজায় সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি, আইনজীবী ও সাংবাদিকেরা অংশ নেন।

এরপর মরদেহ নেওয়া হয় সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ)। সেখানে বেলা ১১টার দিকে তার দ্বিতীয় নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির বর্তমান ও সাবেক নেতারা অংশ নেন। মিজানুর রহমান খান ডিআরইউর সিনিয়র সদস্য ছিলেন।

এ ছাড়া ডিআরইউসহ বিভিন্ন পর্যায়ের সাংবাদিকেরা জানাজায় অংশ নেন। জানাজা শেষে মিজানুর রহমান খানের প্রতি ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান সাংবাদিক নেতারা।

ডিআরইউতে জানাজা শেষে মরদেহ নেওয়া হয় জাতীয় প্রেসক্লাব প্রাঙ্গণে। সেখানে তৃতীয় নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজায় সাংবাদিক নেতারা ছাড়াও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অংশ নেন। তারা মরদেহে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

পরে মিজানুর রহমান খানের মরদেহ নেওয়া হয় কারওয়ান বাজারে তার কর্মস্থল প্রথম আলো কার্যালয়ের সামনে। সেখানে প্রথম আলোর সম্পাদক মতিউর রহমানসহ সহকর্মীরা শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

সোমবার (১১ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় রাজধানীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মিজানুর রহমান খান মারা যান। তার বয়স হয়েছিল ৫৩ বছর। তিনি মা, স্ত্রী, তিন সন্তান, পাঁচ ভাই, তিন বোনসহ অসংখ্য আত্মীয়-স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।