🕓 সংবাদ শিরোনাম

করোনায় ঝালকাঠির জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সানিয়ার মৃত্যুময়মনসিংহ মেডিকেলে একদিনে মৃত্যু ১২, জেলায় নতুন আক্রান্ত ৪৪০ জনকুরবানীর মাংস রান্না করার সময় ভেসে উঠলো আল্লাহর নাম!ঝাঁকে ঝাঁকে ধরা পড়ছে ইলিশ, হাঁকডাকে সরগরম মৎস্যঘাটকেউ খোঁজ রাখেনি, পল্লী বিদ্যুতের তারে বিদ্যুতায়িত পাপেলের ভরসা এখন হুইল চেয়ারবগুড়ার শেরপুরে সাংবাদিকের বাড়ি দখলের চেষ্টা, থানায় অভিযোগজরুরি অবস্থা জারি করতে রাষ্ট্রপতির কাছে আইনজীবীর আবেদননোয়াখালথতে ঘরে আগুন দিয়ে নারীসহ ৩ জনকে পিটিয়ে আহত করেছে কিশোর গ্যাংওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে দেখা করলেন কাদের মির্জাবগুড়ায় আওয়ামী লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

  • আজ বুধবার, ১৩ শ্রাবণ, ১৪২৮ ৷ ২৮ জুলাই, ২০২১ ৷

পৌর নির্বাচন সুষ্ঠু-শান্তিপূর্ণ ও অংশগ্রহণমূলক হয়েছে: তথ্যমন্ত্রী

hasan-mahmud-
❏ সোমবার, জানুয়ারী ১৮, ২০২১ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- জনগণের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে পৌর নির্বাচন সুষ্ঠু, শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

সোমবার (১৮ জানুয়ারি) দুপুরে সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয় সভাকক্ষে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে তিনি একথা বলেন।

দ্বিতীয় ধাপের ৬০টি পৌরসভায় নির্বাচনের বিষয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, “এই নির্বাচনে যত ভোট পড়েছে তার মধ্যে ৬০ শতাংশের বেশি ভোট আওয়ামী লীগ পেয়েছে। বিএনপি পেয়েছে ১৮ শতাংশ। এই নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা বিপুলভাবে জয়লাভ করেছে। চার জন বিএনপির প্রার্থী জয়ী হয়েছেন এবং তারমধ্যে একজন বিদ্রোহী প্রার্থীও রয়েছে। অন্যান্য দলের মধ্যে জাসদ, জাতীয় পার্টির একজন করে নির্বাচিত হয়েছেন। আওয়ামী লীগের ৪৬ জন প্রার্থী নির্বাচিত হয়েছেন।”

বিভিন্ন জায়গায় আওয়ামী লীগের অভ্যন্তরীণ কোন্দল থেকে সহিংসতার বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, “যেটি বলেছেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর কথা। এ বিষয়ে দলের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী ইতোপূর্বে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। এখনও যারা বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছেন তাদের জন্য গঠনতন্ত্র অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ‘ভোট ডাকাতি’ করে জয়ী হয়েছে বলে যে অভিযোগ বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর করেছেন, তারও জবাব দিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ।

তিনি বলেন, “এ ধরনের বক্তব্য বিএনপির দেওয়াটা স্বাভাবিক। কারণ তারা জনগণ কর্তৃক প্রত্যাখ্যাত হয়ে তাদের মুখ রক্ষার জন্য বক্তব্যটি দিয়েছে। তারা যে জনগণ কর্তৃক প্রত্যাখ্যাত হয়েছে প্রথম দফার নির্বাচনে ও দ্বিতীয় দফার নির্বাচনে, এই দুর্বলতা ঢাকার জন্য এ ধরনের বক্তব্য দিচ্ছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাহেব।

“তাদের অনুরোধ জানাব, বাস্তবতাটা অনুধাবন করার জন্য। তারা যে জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছেন এবং উপজেলা পর্যায়ে পৌরসভা পর্যায়ে তাদের যে সাংগঠনিক দুর্বলতা রয়েছে সেই বাস্তবতা মেনে নিয়ে কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ করা উচিত। তাহলে বিএনপি লাভবান হবে। এরপরও বিএনপি বেশ কয়েকটি আসনে জয়ী হয়েছে, এজন্য আমি তাদের অভিনন্দন জানাই।”

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন