• আজ ১৯শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ঘাটাইলে নিখোঁজের তিনদিন পর ঘোড়াগাড়ি চালকের লাশ উদ্ধার

৫:০৬ অপরাহ্ন | মঙ্গলবার, জানুয়ারী ১৯, ২০২১ ঢাকা
লাশ উদ্ধার

খাদেমুল ইসলাম মামুন, ঘাটাইল (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি: টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে নিখোঁজের তিন দিন পর নুরুল ইসলাম (৪৫) নামে এক ব্যাক্তির লাশ উদ্ধার করেছে ঘাটাইল থানার পুলিশ।

সোমবার রাতে উপজেলার লক্ষিন্দর এলাকা থেকে তার লাশ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। এ ব্যাপারে নিহতের ছেলে আনিছুর রহমান বাদী হয়ে ঘাটাইল থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছে।

পুলিশ জানায়, নিহত নুরুল ইসলাম উপজেলার সংগ্রামপুর ইউনিয়নের ছনখোলা গ্রামের আঃ রাজ্জাকের ছেলে। সে পেশায় একজন ঘোড়ারগাড়ি চালক। গত ১৬ জানুয়ারি শনিবার উপজেলায় কুড়ালিয়া বাইদ এলাকায় ঘোড়দৌড় দেখতে গিয়ে নিখোঁজ হয় নুরুল ইসলাম। পরের দিন তার ছেলে আনিছুর রহমান নিখোঁজ হওয়ার ঘাটাইল থানায় সাধারণ ডায়েরী করেন।

সাধারণ ডায়রীর তদন্ত নেমে পুলিশ উপজেলার সুন্দইল গ্রামের জামাল হোসেন (৪৫), তার মেয়ের জামাই দেওজানা গ্রামের ফজর আলী (২৪) এবং একই গ্রামের অটোচালক শাহ আলম (২২) কে আটক করে।

ধৃত আসামীদের ভাষ্যমতে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আসাদুল ইসলাম জানান, ১৬ জানুয়ারি শনিবার সন্ধ্যায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আসামীরা নুরুল ইসলামকে দেওজানা বাজার থেকে জোড়পূর্বক ব্যাটারি চালিত অটোতে তুলে নেয়। পরে তারা অটোতেই শ্বাসরোধ করে তাকে হত্যা করে। মৃত্যু নিশ্চিত হওয়ার পর তারা নুরুল ইসলামের লাশ উপজেলার লক্ষিন্দর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে পাঁচশতগজ পূর্ব দিকে সাগরদিঘী- গারোবাজার পাকা সড়কের পাশে জঙ্গলে ফেলে যায়। পরে তাদের দেয়া তথ্য মতে গতকাল ১৮ জানুয়ারি সোমবার রাতে তার হাত-পা বাধা লাশ উদ্ধার করা হয়।

লক্ষিন্দর ইউনিয়নের ইউপি সদস্য বাহাদুর মিয়া ও এলাকাবাসী জানায়, নিহত নুরুল ইসলাম ও জামাল হোসেনের সাথে আত্মীয়তার সম্পর্ক রয়েছে। জামাল হোসেন গ্রীস প্রবাসী। নারী গঠিত কারণে এ খুনের ঘটনা ঘটতে পারে।

ঘাটাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) সাইফুল ইসলাম জানান, লাশটি ময়না তদন্তের জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে মনে হচ্ছে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে পরিকল্পিতভাবে খুন করা হয়েছে। তবে কি কারণে খুন করা হয়েছে তা তদন্তের পর জানা যাবে।