সংবাদ শিরোনাম

দেশে আবারও লাফিয়ে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ, মৃত্যু ১৩ফের করোনার সংক্রমণ বাড়ার আশঙ্কা, প্রধানমন্ত্রীর তিন নির্দেশনাবাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক আরও মজবুত হবে: : নরেন্দ্র মোদিসীমানা বাণিজ্যের ক্ষেত্রে বাধা হওয়া উচিত নয়: প্রধানমন্ত্রীগাজীপুরে শিশু ধর্ষণের অভিযোগে যুবক আটককালকিনিতে পরকীয়া প্রেমিক-প্রেমিকা আপত্তিকর অবস্থায়  আটকজিয়াউর রহমানকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য আপত্তিকর: রিজভীনিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বরযাত্রীবাহী বাস ধানক্ষেতে, আহত ১৫রংপুরে ধর্ষণ মামলায় এএসআইসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিটসিরাজগঞ্জে পুত্রবধু ধর্ষণের অভিযোগে শ্বশুর গ্রেফতার

  • আজ ২৪শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

গাইবান্ধায় হয়রানি না করার আশ্বাস দিলেন পুলিশ

৯:৪০ অপরাহ্ন | মঙ্গলবার, জানুয়ারী ১৯, ২০২১ রংপুর
Gaibandha news

রবিউল ইসলাম,গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ গত ১৬ জানুয়ারী গাইবান্ধা পৌরসভা নির্বাচনে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর ওপর হামলা, ভাঙচুর ও গাড়িতে আগুন দেওয়ার ঘটনার পর থেকে পুরুষ শূন্য হয়ে পরেছে শহরের পুর্বকোমরনই এলাকা। যার কারণে গ্রামের নারীদের মাঝে এক প্রকার আতঙ্ক বিরাজ করছে। তাই কাউকে হয়রানি করা হবে না বলে এলাকায় মাইকিং করছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (১৯ জানুয়ারি) সকাল থেকে ওই এলাকায় পুলিশের পক্ষে মাইকিং করতে দেখা গেছে।

প্রসঙ্গত, গত ১৬ জানুয়ারি গাইবান্ধা পৌরসভা নির্বাচনের ভোটগ্রহণ একটি কেন্দ্রের ব্যালট ও মালামাল নিয়ে ফেরত আসার মুহূর্তে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর ওপর হামলা করে দুর্বৃত্তরা। এসময় পুলিশের একটি গাড়িতে আগুন লাগিয়ে দিয়ে ম্যাজিস্ট্রেট ও র‌্যাবের আরও তিনটি গাড়ি ভাঙচুর করা হয়। এ ঘটনায় সদর থানায় পৃথক দুটি মামলা করে র‌্যাব ও পুলিশ। গত তিন দিনে নতুন করে কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

গাইবান্ধা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাহফুজার রহমান বলেন, ‘ঘটনার পর থেকে এলাকার লোকজন পলাতক। ফলে নতুন করে কাউকে গ্রেপ্তার করা যায়নি। তবে আসামিদের গ্রেপ্তারে পুলিশি অভিযান অব্যাহত আছে।’

তিনি আরও বলেন, তদন্ত করে প্রকৃত অপরাধীদেরই গ্রেপ্তার করা হবে। কাউকে হয়রানি করা হবে না। আতঙ্ক কাটাতে মঙ্গলবার সকাল থেকে পুর্বকোমরনই এলাকায় মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা, জেলা পরিষদের সদস্য ও গণ্যমান্য ব্যক্তিদের সঙ্গে নিয়ে মাইকিং ও গণসংযোগ করা হয়েছে। সবাইকে ঘরে থাকতে বলা হয়েছে। ভয়ের কোনও কারণ নেই। ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে প্রকৃত অপরাধীদের ধরা হবে, নিরপরাধ কাউকে গ্রেপ্তার বা হয়রানি করা হবে না।