• আজ ১৯শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে নবজাতক চুরি!

১০:২২ অপরাহ্ন | শুক্রবার, জানুয়ারী ২২, ২০২১ রাজশাহী
Rajshahi news

অসীম কুমার সরকার, রাজশাহী প্রতিনিধি:  রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের গাইনি ওয়ার্ড থেকে ৩ দিন বয়সী এক কন্যা শিশু চুরি হয়েছে।

আৃজ শুক্রবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে রামেক হাসপাতালের ২৩ নং ওয়ার্ড থেকে ওই নবজাতক চুরি হয়। তার মায়ের নাম কমলে। চলতি মাসে ২০ জানুয়ারী রাত ৯টার দিকে রামেক হাসপাতালের অপারেশন থিয়েটারে সিজারিয়ানের মাধ্যমে শিশুটির জন্ম হয়।

সদ্য নবজাতককে হারিয়ে শোকে হতবিম্বল হয়ে পড়েছেন তার বাবা ও মা। নবজাতকের বাবার বাড়ি রাজশাহী মহানগরীর রাজপাড়া থানার আইডি হাসপাতাল এলাকায়। ওই শিশুর বাবা পেশায় একজন পাদুকা কারিগর। এটি তাদের প্রথম সন্তান। ঘটনার পর থেকে হাসপাতালের বিভিন্ন স্থানে থাকা সিসিটিভি ফুটেজের ভিডিও পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে।

কন্যা শিশুর বাবা মাসুম রবিদাস জানান, চলতি মাসের ২০ তারিখ তার স্ত্রীর সিজারিয়ানের মাধ্যমে কন্যা শিশুর জন্ম হয়। শিশুটির বয়স মাত্র ৩ দিন। ২৩ নং ওয়ার্ডে তার স্ত্রী চিকিৎসাধীন ছিলেন। স্ত্রীর সাথে তার শাশুড়ি, ভাবি ও অন্যান্য স্বজনরা ছিলেন। তবে তিনি বাইরে ছিলেন।

শুক্রবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে প্রকাশ্য দিবালোকে তার কন্যা সন্তান চুরি হয়। পরে তাকে সন্তান চুরির বিষয়টি মোবাইল ফোনে জানানো হয়। কান্নাজড়িত কণ্ঠে তিনি আরো জানান, তার স্ত্রীর পাশের বেডে এক অপরিচিত নারী ছিল। এটিও তার কাজ হতে পারে। তাকে পাওয়া যাচ্ছেনা। এটি আমাদের প্রথম সন্তান। স্ত্রীকে কোনোভাবেই সান্তনা দেয়া যাচ্ছেনা। আমরা আমাদের সন্তানকে ফেরত চাই।

তিনি প্রশ্ন রেখে বলেন, হাসপাতালের প্রতিটি ওয়ার্ডে আনসার সদস্য ও গেটে আনসার সদস্যরা পাহারায় থাকে তাহলে কিভাবে তার সন্তানকে চুরি করে নিয়ে যাওয়া সম্ভব হলো? ছোট শিশু নিয়ে যেতে হলে শিশুর ছাড়পত্র গেটে দেখাতে হয়। হাসপাতালে কর্তব্যরতদের অবহেলাও এর জন্য দায়ী। থানায় শিশু চুরির বিষয়ে অভিযোগ করা হয়েছে।

রামেক হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস বলেন, ওই শিশু জন্ম হওয়ার আগে থেকেই এক নারী তাদের সাথে সম্পর্ক তৈরি করে বলে প্রাথমিকভাবে শুনেছি। তার কাজ কিনা বা কে ওই শিশুকে চুরি করে নিয়ে গেল তা সিসিটিভি ফুটেজের মাধ্যমে শনাক্তের চেষ্টা চলছে। বিষয়টি পুলিশকেও অবহিত করা হয়েছে।

এ বিষয়ে নগরীর রাজপাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মাজহারুল ইসলাম বলেন, থানায় অভিযোগ পেয়েছি। সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহের চেষ্টা চলছে। শিশুটি উদ্ধারে কাজ শুরু করা হয়েছে। উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে একটি নবজাতক চুরি হয়। ওই নবজাতকের বয়সও তিন দিন ছিল। পরে পুলিশ বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে নবজাতকটিকে উদ্ধার করে।