প্রধানমন্ত্রী আপনি প্রথম টিকাটি নিন: মির্জা ফখরুল

৬:১২ অপরাহ্ন | রবিবার, জানুয়ারী ২৪, ২০২১ জাতীয়
fokrul

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- ভারতের দেওয়া টিকা নিয়ে মানুষের সন্দেহ আছে উল্লেখ করে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, মানুষের সন্দেহ ও অনাস্থা দূর করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর উচিত প্রথমে টিকা নেওয়া।

রোববার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনা সভায় মির্জা ফখরুল এসব কথা বলেন। ঐতিহাসিক গণ-অভ্যুত্থান দিবস উপলক্ষে ‘স্বৈরাচার নিপাত যাক, গণতন্ত্র মুক্তি পাক’ শীর্ষক এই সভার আয়োজন করে নাগরিক ঐক্য।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, করোনা টিকায় মানুষের আস্থা নেই। মানুষের যথেষ্ট সন্দেহ আছে। টিকা নিয়ে সন্দেহ দূর করতে ইংল্যান্ডের রানি আগে টিকা নিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘আমার প্রস্তাব, প্রধানমন্ত্রী (শেখ হাসিনা) আপনি প্রথম টিকাটি নিন। তারপর মানুষকে বলুন ভয়ের কিছু নেই। তাহলেই মানুষের আস্থা ফিরে আসবে।’

করোনার প্রণোদনার টাকা নিয়ে সরকারের মূল লক্ষ্য ছিল পকেট ভর্তি করা। করোনার পরীক্ষা নিয়ে যে লুট সরকার করেছে, টিকা নিয়ে সরকার একই কাজ করছে। করোনার টিকা প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘সরকার মানুষের জীবন নিয়ে ছিনিমিনি খেলছে। সরকারের মূল লক্ষ্যই হচ্ছে লুট করা, দুর্নীতি করা।’ তিনি বলেন, এখন প্রধান সংকট হচ্ছে, একটা অনির্বাচিত সরকার জনগণের সঙ্গে প্রতারণা করে জবাবদিহি ছাড়া জোর করে ক্ষমতায় আছে। রাষ্ট্রযন্ত্রকে ব্যবহার করে রাষ্ট্রকে দলীয়করণ করেছে। তিনি আরও বলেন, জনগণ অধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

জনগণের ভোটে একটা প্রতিনিধিত্বমূলক সরকার ক্ষমতায় এসে জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠা করবে, সেই সরকার দেশে দরকার। ঐক্যবদ্ধ হয়ে গণ-অভ্যুত্থানের মধ্য দিয়ে বর্তমান সরকারকে সরে যেতে বাধ্য করতে হবে।

দেশে বর্তমানে একটি প্রতিনিধিত্বমূলক সরকার দরকার বলেও মন্তব্য করেন বিএনপি মহাসচিব। তিনি বলেন, যারা জনগণের ভাষা বোঝে না, তাদের ক্ষমতায় থাকার কোনো অধিকার নেই। আমরা জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে চাই।

বর্তমান সরকার সংবিধানকে নিজেদের মতো করে পরিবর্তন করেছে বলেও অভিযোগ করেন মির্জা ফখরুল।

সভায় সভাপতিত্ব করেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না। এসময় অন্যদের মধ্যে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদের ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক শওকত মাহমুদ ও গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি প্রমুখ বক্তব্য দেন।