সরকারের অপশাসন আড়াল করার জন্য তারেক রহমানকে সাজা: ফখরুল

৫:৩৪ অপরাহ্ন | বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারী ৪, ২০২১ জাতীয়
fokrul

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- বর্তমানে আইন আদালত সরকারের হাতের মুঠোয় বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেন, ‘দেশে-বিদেশে সরকারের অপশাসন, কুশাসন প্রচার তড়িঘড়ি করে আড়াল করার জন্য বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জনাব তারেক রহমানকে সাজানো মামলায় আজ সরকারের নির্দেশে নড়াইলের আদালত ফরমায়েশী যে রায় দিয়েছে তা সম্পূর্ণরুপে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত’।

বৃহস্পতিবার নড়াইল আদালতে অসত্য, বানোয়াট ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত একটি মানহানির মামলায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে সাজা দেয়ার ন্যাক্কারজনক ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বিএনপির সহ-দফতর সম্পাদক মুহম্মদ মুনির হোসেন সাক্ষরিত গণমাধ্যমে পাঠানো এক প্রতিবাদ বিবৃতিতে তিনি একথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, সত্য উচ্চারণের কারণে মানহানি মামলায় এ ধরণের রায় নজীরবিহীন ঘটনা। মূলতঃ নানা অপকীর্তির কারণে বর্তমানে দেশে-বিদেশে এই সরকারের ভাবমূর্তি চরমভাবে বিনষ্ট। এই কারণে সরকার বেপরোয়া ও উন্মাদ হয়ে জনদৃষ্টিকে ভিন্নখাতে নিতে একতরফা বিচারিক প্রক্রিয়া চালিয়ে তারেক রহমানের বিরুদ্ধে প্রতিহিংসার রায় দেয়া হয়েছে। তারেক রহমানের বিরুদ্ধে নড়াইলের আদালতের রায় কুটিল মাষ্টারপ্ল্যানেরই অংশ।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে মানুষের বাক-ব্যক্তি স্বাধীনতা কেড়ে নেয়া হয়েছে। কণ্ঠরোধ করা হয়েছে গণমাধ্যমের। কেউ সত্য উচ্চারণ করলেই তার ওপর নেমে আসে নির্মম নির্যাতন ও মিথ্যা মামলার খড়গ। এই মামলাটিও এর ব্যতিক্রম নয়।

তিনি বলেন, সরকারের ভয়াবহ নির্যাতন ও নিপীড়নে শুধু গণমাধ্যম নয়, গোটা জাতি এখন সেল্ফসেন্সরশীপে ভুগছে। এর মধ্যে সরকারের কিছু অপকর্ম বিদেশী গণমাধ্যমে প্রকাশিত হলে সেটির উপযুক্ত ব্যাখা না দিয়ে বরং তারেক রহমানকে সামনে আনা হয়েছে তার বিরুদ্ধে মিথ্যা ও বানোয়াট মামলায় সাজা দিয়ে।

মির্জা ফখরুল বলেন, বর্তমান বাংলাদেশে মামলা ও আদালতের রায় সরকারের ইচ্ছাতেই নির্দেশিত হয়। তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মানহানির মামলার এই নজীরবিহীন রায়ও বর্তমান সরকারপ্রধানের ইচ্ছারই প্রতিফলন। আমি এই রায় প্রত্যাখান করে রায়ের বিরুদ্ধে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং অবিলম্বে এই রায় প্রত্যাহারের জোর আহবান জানাচ্ছি।